নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩, কক্সবাজার এর নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন সমাধান-২০২৩

0
122

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩, কক্সবাজার এর

নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন সমাধান-২০২৩

পদের নামঃ- অফিস সহায়ক
পরীক্ষার তারিখঃ- ১৮-০২-২০২৩

১. এক কথায় প্রকাশ করুনঃ

ক.  নূপুরের শব্দ = নিক্বণ

খ. অন্তিমকাল উপস্থিত যার = মুমূর্ষু

গ. ভবিষ্যৎ না ভেবে কাজ করে যে = অবিমৃষ্যকারী

ঘ. অল্প কথা বলে যে = মিতভাষী

ঙ. আপনাকে যে ভুলে থাকে = আত্মভোলা

২। বাগধারাগুলোর অর্থ লিখুনঃ

ক. তামার বিষ (অর্থের কুপ্রভাব): তামার বিষে ওরা ধরাকে সরা জ্ঞানকরছে।

খ. ডুমুরের ফুল (অদৃশ্য ব্যক্তি বা বস্তু): কী ব্যাপার ! তুমি হঠাৎ ডুমুরের ফুল হয়ে উঠলে যে?

গ. ব্যাঙের সর্দি (অসম্ভব ঘটনা): জেল খাটা আসামিকে দেখাচ্ছ জেলের ভয় – ব্যাঙের আবার সর্দি।

ঘ. আক্কেল গুডুম: আক্কেল গুডুম (স্তম্ভিত)! এইটুকু ছেলের কথা শুনে আমার তো আক্কেল গুডুম।

ঙ. একাদশে বৃহস্পতি (সুসময়): পাস করতে না করতেই আপনার ছেলেটা ভাল চাকরি পেয়ে গেল, আপনার তো ভাই একাদশে বৃহস্পতি।

৩। পারিভাষিক অর্থ লিখুনঃ

Acknowledgment = স্বীকৃতি

Compensation = ক্ষতিপূরণ

Deputation = প্রেষণ

Annexation = সংযোজন

Impeachment = অভিশংসন

৪। বাংলা অনুবাদ করুনঃ

Dishonest men are never trusted. They adopt dishonesty to achieve success. They cannot hide their dishonesty for long. It is exposed sooner or later. They deceive others once or twice. But if they are once known to be dishonest, they are never trusted again.

অনুবাদঃ অসৎ মানুষকে কখনোই বিশ্বাস করা যায় না। তারা সফলতা অর্জনকে জন্য অসততা অবলম্বন করে।তারা তাদের অসততা বেশি দিন লুকিয়ে রাখতে পারে না এটা শীঘ্রই বা পরে প্রকাশ হয়ে যায়। তারা অন্যকে একবার বা দুইবার ধোঁকা দেয়। কিন্তু যদি তারা একবার অসৎ বলে পরিচিত হয়, তবে তাদেরকে আর কখনও বিশ্বাস করা যায় না।

৫। Translate into English:

ক) তিনি সৎ লোক ছিলেন, তাই না?

= He was an honest man, wasn’t he?

খ) এই চাকরিটা আমার খুবই প্রয়োজন।

=I really need this job.

গ) যেমন কর্ম তেমন ফল।

= As you sow so you reap.

ঘ) এক মাঘে শীত যায় না।

= One swallow does not makes a summer.

ঙ) ইচ্ছা থাকলে উপায়।

= Where there is a will, there is a way.

৬। Write an essay on any of the followings:

  1. Child Marriage

Ans. Child Marriage

Child marriage is the union of two young people, a boy and a girl, before they turn eighteen. In Bangladesh, 18 is regarded as the minimum age required for marriage. Unfortunately, child marriage is the practice of getting 59% of

Bangladeshi girls married before they turn 18 years old. Child marriage is typically prevalent in low- income families. These low-income parents are unable to pay for their daughters’ educations. Even they are unable to give them adequate food, clothing, or employment. These women frequently idle away their time. These circumstances compel the parents to arrange for their daughter’s marriage. Early marriage is also a result of superstitions, social and religious traditions, discriminatory attitudes toward girls, and flawed views of girls’ education. Early marriage has many negative effects. The girl’s health will suffer if she gives birth too young. Both the mother and the child should avoid it. Sometimes a baby is born with a variety of complications. Thus, it is necessary to stop this practice. No girl should be married off prior to the ages of 18 and 21 for a boy. To promote female education and discourage early marriage, our government has made some good moves. They include things like providing stipends to girls and hiring more female teachers. They are such as giving stipends to girls, recruiting more female teachers, etc. This will help in stopping carly marriage. Giving girls stipends is one of them, as is hiring more female teachers. etc. This will aid in preventing young marriage.

  1. Smart Bangladesh;

Smart Bangladesh

The task force formerly known as “Digital Bangladesh” has been renamed “Smart Bangladesh” by the government. By placing a strong emphasis on the growth of industries through the development of cutting-edge technologies, the creation of a skilled workforce, and the preservation of the environment, the government is gradually advancing toward the fourth industrial revolution. Making smart citizens, a smart society, a smart economy, and a smart government are the goals of “Smart Bangladesh.” Smart systems will be used to conduct business m the financial, agricultural, health, and educational sectors. In order to modemize government management and create an effective and transparent management structure for its growth, coordinated activities will be carried out. Additionally, many activities will be digitalized. The Awami League government now aims to create “Smart Bangladesh” after creating “Digital Bangladesh.” On the basis of four pillars, initiatives are being taken to create a smart Bangladesh of the future. To create a “Smart Bangladesh,” four pillars will be needed. Like “smart society.” “smart economy.” “smart government,” etc. Technology will be used for everything in the Smart Bangladesh. There, the populace will be adept at using technology and will use it to run the entire economy. Future Smart Bangladesh will be economically viable,

environmentally friendly, knowledge-based, clever, and innovative. Smart cities will be areas of urbanization where contemporary technologies are applied to improve human-friendly services to residents while ensuring maximum utilization of a city’s resources and ensuring minimal environmental impact. Although there are numerous components to smart cities, the proposed smart city framework for Bangladesh broadly identifies five components and services, including healthcare, transportation, public safety, utilities, and urban administration. Through the use of digital technology and open innovation platforms, a smart village will be a rural area where local residents can connect with the global market. In addition, the development of the food supply system, the development of renewable energy sources, and other service delivery systems in the public and private sectors will all benefit greatly

from Smart Village. By 2041, efforts are being made to change the name of the nation from “Digital Bangladesh” to “Smart Bangladesh.”

৭। নিম্নোক্ত প্রশ্নগুলোর উত্তর দিনঃ

ক. গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি কাদের ভোটে কত বছরের জন্য নির্বাচিত হন?

উত্তরঃ- বর্তমানে রাষ্ট্রপতি জাতীয় সংসদের সদস্যদের দ্বারা ৫ বছরের জন্য নির্বাচিত হয়ে থাকেন।

খ. বাংলাদেশের মাননীয় প্রধান বিচারপতি ও আ্যাটর্নি জেনারেলের নাম লিখুন।

উত্তরঃ- বাংলাদেশের মাননীয় প্রধান বিচারপতি– হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী | বাংলাদেশের বর্তমান আ্যাটর্নি জেনারেল হলেন এ এম আমিন উদ্দিন।

গ. কোন সংস্থা কবে ২১ শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয়?

উত্তরঃ- ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর UNESCO ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি (ঘোষণা) দেয়৷

ঘ. জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান কর্তৃক রচিত ২ (দুই) টি বইয়ের নাম লিখুন।

উত্তরঃ- অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা।

ঙ. অপারেশন সার্চ লাইট কবে কোথায় পরিচালিত হয়?

উত্তরঃ- অপারেশন সার্চলাইট ২৫ মার্চ ১৯৭১ সালে সংঘটিত হয়। উলেখ্য , ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ দিবাগত রাতে ব্যাপক গণহত্যা চালিয়ে বাঙালি জাতিকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী যে সশস্ত্র পরিচালনা করে তারই নাম দেয় ‘অপারেশন সার্চলাইট’।

চ. জাতিসংঘের সদর দপ্তর কোন দেশের কোন শহরে/ অঞ্চলে অবস্থিত।

উত্তরঃ- জাতিসংঘের সদর দপ্তর নিউইয়র্ক, যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থিত।

ছ. ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ ২০২২ এ চ্যাম্পিয়ন ও তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দেশের নাম কী?

উত্তরঃ- ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ ২০২২ এ চ্যাম্পিয়ন = আর্জেন্টিনা

তৃতীর স্থান অর্জনকারী = ক্রোয়েশিয়া

জ. বাংলাদেশে মেট্রোরেল কবে কে উদ্বোধন করেন?

উত্তরঃ-  ২৮ ডিসেম্বর, ২০২২ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশে মেট্রোরেল উদ্বোধন করেন।

ঝ. নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০ ও শিশু আইন, ২০১৩

অনুসারে কত বছরের ব্যক্তি শিশু হিসেবে গণ্য?

উত্তরঃ- নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শিশু বলতে অনধিক ১৬ বছর বয়সের কোন ব্যক্তিকে বুঝায়। আর শিশু আইন,২০১৩ -এ শিশু বলতে অনধিক ১৮ বছর বয়সের কোন ব্যক্তিকে বুঝায়। আবার পারিবারিক সহিংসতা (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা) আইন ,২০১০ এর ধারা- ২(১৮) অনুযায়ী “শিশু” বলতে ১৮ বছর পূর্ণ হয়নি এমন ব্যক্তিকে বুঝানো হবে।

ঞ. বাংলাদেশের সংবিধানে স্বীকৃত ২ (দুই) টি মৌলিক অধিকার উল্লেখ করুন।

২৭ আইনের চোখে সমতা: সকল নাগরিক আইনের দৃষ্টিতে সমান এবং আইনের সমান আশ্রয় লাভের অধিকারী।

২৯ সরকারি নিয়োগ লাভের সুযোগের সমতা: প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োগ বা পদলাভের ক্ষেত্রে সকল নাগরিকের জন্য সুযোগের সমতা থাকবে।

৮। একজন মাছ বিক্রেতা প্রতি হালি ইলিশ মাছ ১৬০০ টাকায় কিনে প্রতিটি মাছ ৩৫০ টাকায় বিক্রি করেন। এতে তাঁর শতকরা লাভ বা ক্ষতি কত?

৪ টি ইলিশ মাছের ক্রয়মূল্য = ১৬০০ টাকা

১ টি ইলিশ মাছের ক্রয়মূল্য = (১৬০০/৪)=8০০ টাকা

আবার ১ টির বিক্রয়মূল্য = ৩৫০ টাকা

ক্ষতি = ৪০০ – ৩৫০ = ৫০ ঢাকা

শতকরা ক্ষতি = (৫০/৪০০) * ১০০%

= ১২.৫% (উত্তর)

Download From Google Drive

Download

আরো পড়ুনঃ-

Download From Dropbox

Download