অষ্টম শ্রেণির বাংলা পড়ে পাওয়া গল্পের বহুনির্বাচনী জ্ঞানমূলক ও সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর

0
50

অষ্টম শ্রেণির বাংলা পড়ে পাওয়া গল্পের বহুনির্বাচনী

জ্ঞানমূলক ও সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর

পড়ে পাওয়া বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়

১)‘পড়ে পাওয়া’ রচনাটির লেখক কে?

ক) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়✔

খ) মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়

গ) শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

ঘ) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

২) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কত সালে জন্মগ্রহণ করেন?

ক) ১৮৯০

খ) ১৮৯৩

গ) ১৮৯৪✔

ঘ) ১৮৯৫

৩) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কত সালে মারা যান?

ক) ১৯৪০

খ) ১৯৫০✔

গ) ১৯৬০

ঘ) ১৯৭০

৪) কাদের বাগানে আম কুড়াতে কালবৈশাখী উপেক্ষা করে সবাই ছুটছিল?

ক) চাটুয্যেদের

খ) মুখুয্যেদের

গ) বাড়ুয্যেদের✔

ঘ) গাঙ্গুলিদের

৫) চাঁপাতলীর আমের ব্যাপারে এত আগ্রহের কারণ—

  1. i) প্রচুর পাওয়া যায়
  2. ii) খেতে অত্যন্ত সুস্বাদু

iii) নির্বিঘ্নে কুড়ানো যায়

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) I

খ) i ও ii✔

গ) ii ও iii

ঘ) i, ii ও iii

৬) লেখকের চমৎকার অর্থে ব্যবহৃত ‘দিব্যি’ শব্দটি আমরা আর কোন অর্থে ব্যবহার করে থাকি?

ক) শপথ✔

খ) বিশ্বাস

গ) সংশয়

ঘ) অনবরত

নিচের উদ্দীপকের আলোকে ৭ ও ৮ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দাও

স্কুলের ঝাড়ুদার শচী। পরীক্ষা শেষে কক্ষ পরিষ্কার করতে গিয়ে সে একটি দামি ঘড়ি পেল। তার লোভ হলো। ভাবল, ঘড়িটা মেয়ের জামাইকে উপহার দেবে। মেয়ে নিশ্চয়ই খুব খুশি হবে। কিন্তু রাতে ঘুমাতে গিয়ে মনে হলো, এ অন্যায়, অনুচিত। যার ঘড়ি, তার মনোকষ্টের কারণে মেয়ের চরম অকল্যাণ হতে পারে। ঘড়িটা কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেওয়া তার কর্তব্য। সে পরদিন তা–ই করল।

৭) শচীর সঙ্গে ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের কোন চরিত্রের মিল রয়েছে?

ক) বাদল

খ) বিধু

গ) কথক✔

ঘ) সিধু

৮) উল্লিখিত তুলনাটা কোন মানদণ্ডে বিচার করা যায়?

  1. i) ন্যায় ও কর্তব্যবোধে উদ্বুদ্ধ
  2. ii) লোকলজ্জার ভয়ে ভীত

iii) অকল্যাণ চিন্তায় তাড়িত

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) I✔

খ) i ও ii

গ) ii ও iii

ঘ) i, ii ও iii

৯) সন্ধ্যার অন্ধকারে নদীর ধারের পথ দিয়ে কে বাড়ি ফিরছিল?

ক) লেখক আর বিধু✔

খ) লেখক আর বাদল

গ) বিধু আর সিধু

ঘ) বিধু আর বাদল

১০) বাক্সটিতে নগদ কত টাকা ছিল?

ক) চল্লিশ

খ) পঞ্চাশ✔

গ) ষাট

ঘ) সত্তর

১১) কাদের বাগানে আম কুড়াতে কালবোশেখি উপেক্ষা করে সবাই ছুটছিল?

ক) চাটুয্যেদের

খ) মুখুয্যেদের

গ) বাড়–য্যেদের✔

ঘ) গাঙ্গুলিদের

১২) চাঁপাতলীর আমের ব্যাপারে এত আগ্রহের কারণ তা-

  1. i) প্রচুর পাওয়া যায়
  2. ii) খেতে অত্যন্ত সুস্বাদু

iii) নির্বিঘ্নে কুড়ানো যায়

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i

খ) ii

গ) i ও ii✔

ঘ) iii

১৩) লেখকের চমৎকার অর্থে ব্যবহৃত ‘দিব্যি’ শব্দটি আমরা আর কোন অর্থে ব্যবহার করে থাকি?

ক) শপথ✔

খ) বিশ্বাস

গ) সংশয়

ঘ) অনবরত

নিচের উদ্দীপকের আলোকে প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :

স্কুলের ঝাড়–দার শচী। পরীক্ষা শেষে কক্ষ পরিষ্কার করতে গিয়ে সে একটি মূল্যবান ঘড়ি পেল। তার লোভ হলো। ভাবল, ঘড়িটা মেয়ের জামাইকে উপহার দেবে। মেয়ে নিশ্চয়ই খুব খুশি হবে। কিন্তু রাতে ঘুমুতে গিয়ে মনে হলো- এ অন্যায়, অনুচিত। যার ঘড়ি তার মনোকষ্টের কারণে মেয়ের চরম অকল্যাণ হতে পারে। ঘড়িটা কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেয়া তার কর্তব্য। সে পরদিন তাই করল।

১৪) শচী ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের কোন চরিত্রের প্রতিভূ?

ক) বাদল

খ) বিধু

গ) কথক✔

ঘ) সিধু

১৫) উল্লিখিত তুলনাটা কোন মানদ-ে বিচার্য? উভয়েই-

  1. i) ন্যায় ও কর্তব্যবোধে উদ্বুদ্ধ
  2. ii) লোকলজ্জার ভয়ে ভীত

iii) অকল্যাণ চিন্তায় তাড়িত

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i✔

খ) ii

গ) i ও ii

ঘ) ii ও ii

১৬) ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পটি পাঠ করে শিক্ষার্থীর মধ্যে সৃষ্টি হবে-

  1. i) নৈতিক চেতনা
  2. ii) কর্তব্যপরায়ণতা

iii) সততা

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i ও ii

খ) i ও iii

গ) ii ও iii

ঘ) i, ii ও iii✔

১৭) দুজনেই হঠাৎ ধার্মিক হয়ে উঠলাম। -উক্তিটিতে বালকদের চরিত্রের যে দিকটি প্রকাশ পায়-

  1. i) বিবেচনাবোধ
  2. ii) নৈতিকতাবোধ

iii) ঐক্য চেতনা

নিচের কোনটি সঠিক?

i ও ii✔

i ও iii

ii ও iii

i, i ও iii

১৮) বিধুর বাবার মুখ দিয়ে একটি কথাও বেরুল না কেন?

ক) বিধুর বুদ্ধিমত্তা দেখে✔

খ) ছেলেদের চঞ্চলতা দেখে

গ) লোকটির কান্না দেখে

ঘ) গ্রামের মানুষের কর্মতৎপরতা দেখে

১৯) সব বন্ধুর মনের শঙ্কা দূর করল কে?

ক) বিধু✔

খ) নিধু

গ) বাদল

ঘ) তিনু

২০) কার হাতের লেখা ভালো?

ক) বিধুর

খ) তিনুর

গ) সিধুর

ঘ) বাদলের✔

২১) নিধুকে কে ধমক দিয়েছিল?

ক) সিধু

খ) বিধু✔

গ) তিনু

ঘ) বাদল

২২) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম-

  1. i) পুরোহিতপুর গ্রামে

iii) পিত্রালয়ে

iii) মাতুলালয়ে

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i ও ii

খ) iii✔

গ) ii ও iii

ঘ) i, ii ও iii

২৩) ‘আজ এখানে দুটি ডালভাত খেও’-কাপালিকে বলা এ কথায় রয়েছে-

ক) সৌজন্যতা✔

খ) সাম্যবাগিতা

গ) ন্যায়বোধ

ঘ) স্বজাত্যবোধ

২৪) বালকদলের গুপ্ত মিটিং বসে বাদলদের-

ক) চণ্ডীমণ্ডপে

খ) নাটমন্দিরের কোণে✔

গ) পাশের জামতলায়

ঘ) বিচুলি গাদার পাশে

২৫) ‘চোখ দিয়ে জল পড়তে লাগল’- ‘পড়ে পাওয়া গল্পে কাপালিকের উক্ত অনুভূতির কারণ কী?

ক) বাক্স হারানো

খ) বন্যায় আশ্রয়হীনতা

গ) ডাল-ভাতের আমন্ত্রণ

ঘ) বাক্স ফেরত পাওয়া✔

২৬) ‘হীরামানিক জ্বলে’-কিশোর উপন্যাসটি রচনা করেন কে?

ক) সৈয়দ মুজতবা আলী

খ) মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়

গ) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়✔

ঘ) বিপ্রদাশ বড়–য়া

২৭) ঘুড়ির মাপে কাটা কাগজগুলো কীসের আঠা দিয়ে লাগানো হয়েছিল?

ক) আমের

খ) কাঁঠালের

গ) বাবলার

ঘ) বেলের✔

২৮) কোন চরের কাপালিরা বন্যার কারণে নিরাশ্রয় হয়ে গেল?

ক) মেহেরপুর

খ) অম্বরপুর✔

গ) বিষুবপুর

ঘ) আজিবপুর

২৯) তেঁতুল গাছের ভূতের ভয় মন থেকে চলে যাওয়ার কারণ কী?

ক) সন্দেশ খাওয়ার পরিকল্পনা করায়

খ) প্রচ- শীতের প্রকোপে

গ) পড়ে পাওয়া বাক্সের ভাবনায় ব্যস্ত থাকায়✔

ঘ) পড়ে পাওয়া বাক্সটি কীভাবে ভাঙতে হবে তাতে ব্যস্ত থাকায়

৩০) ভাঙা নাটমন্দিরটি কাদের?

ক) বাদলদের

খ) লেখকদের

গ) বিধূদের

ঘ) তিনুদের

৩১) ‘দিব্যি’ শব্দের অর্থ কী?

ক) চমৎকার✔

খ) দিব্য

গ) নেহায়েত

ঘ) আলোকিত

৩২) ডাবল টিনের বাক্সে যা থাকে তা হলো

  1. i) টাকা কড়ি
  2. ii) গুপ্তধন

iii)গহনা

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i

খ) ii

গ) i ও iii✔

ঘ) i, ii ও iii

নিচের অনুচ্ছেদে পড়ে ২৩ ও ২৪নং প্রশ্নের উত্তর দাও :

স্কুল থেকে ফেরার সময় পুতুল রাস্তায় একটি মানিব্যাগ পেল। ফিরে গিয়ে, সে সরাসরি প্রধান শিক্ষকের নিকট জমা দিল।

৩৩) উদ্দীপকের বিষয়বস্তু তোমার পঠিত কোন রচনার প্রতি ইঙ্গিত করে?

ক) অতিথির স্মৃতি

খ) পড়ে পাওয়া✔

গ) সুখী মানুষ

ঘ) তৈলচিত্রের ভূত

৩৪) উক্ত রচনায় প্রকাশ পেয়েছে

  1. i) নৈতিকতাবোধ
  2. ii) জীবনপ্রেমের পরিচয়

iii) মানবিকতাবোধ

নিচের কোনটি সঠিক?

ক) i ও ii

খ) i ও iii✔

গ) ii ও iii

ঘ) i, ii ও iii

৩৫) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কত সালে জন্মগ্রহণ করেন? (জ্ঞান)

ক) ১৮৯৪✔

খ) ১৮৯৫

গ) ১৮৯৬

ঘ) ১৮৯৭

৩৬) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কোন জেলায় জন্মগ্রহণ করেন? (জ্ঞান)

ক) দিনাজপুর

খ) চব্বিশ পরগনা✔

গ) রাজশাহী

ঘ) খুলনা

৩৭) কে দারিদ্র্যের মধ্যে বড় হয়েছেন? (জ্ঞান)

ক) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

খ) বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়

গ) প্রমথ চৌধুরী

ঘ) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়✔

৩৮) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রথম স্ত্রী মৃত্যুবরণ করেন কত সালে? (জ্ঞান)

ক) ১৯১০

খ) ১৯১২

গ) ১৯১৫

ঘ) ১৯১৮✔

৩৯) প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুর কত বছর পর বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় দ্বিতীয় বিয়ে করেন? (জ্ঞান)

ক) ২০

খ) ২২✔

গ) ২৪

ঘ) ২৬

৪০) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের শ্রেষ্ঠ কীর্তি কোনটি? (জ্ঞান)

ক) মেঘমল্লার

খ) তৃণাঙ্গুর

গ) পথের পাঁচালী✔

ঘ) স্মৃতির রেখা

৪১) বাংলা সাহিত্যের অমূল্য সম্পদ হিসেবে কোন উপন্যাসটির নাম যুক্তিযুক্ত? (জ্ঞান)

ক) অপরাজিত✔

খ) অক্টোপাস

গ) এলো সে অবেলায়

ঘ) ইছামতী

৪২) কোনটি বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের রচনা? (জ্ঞান)

ক) অচল পদাবলী

খ) কুহেলিকা

গ) জীবন কথা

ঘ) মৌরীফুল✔

৪৩) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কত সালে মারা যান? (জ্ঞান)

ক) ১৯২০

খ) ১৯৩০

গ) ১৯৪০

ঘ) ১৯৫০✔

৪৪) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধায় রচিত সাহিত্যে কোন বিষয় অখ- অবিচ্ছিন্ন সত্তায় সমন্বিত হয়েছে? (জ্ঞান)

ক) প্রকৃতি ও রাজনীতি

খ) প্রকৃতি ও মানবজীবন✔

গ) মানবজীবন ও রাজরীতি

ঘ) প্রকৃতি ও সমাজবাস্তবতা

৪৫) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কীভাবে আনন্দ খুঁজে পান? (অনুধাবন)

ক) সাহিত্য রচনায়✔

খ) গান রচনায়

গ) অভিনয় করে

ঘ) বই পড়ে

৪৬) নৈতিক চেতনা ছাড়া ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পে কোন চিত্র ফুটে উঠেছে?

ক) পারস্পরিক প্রতিদানের

খ) দরিদ্রদের প্রতি ভালোবাসার✔

গ) পূজা-পার্বণের

ঘ) সামন্তদের বিলাস-ব্যসনের

৪৭) বিধু, সিধু, নিধু, তিনুদের মধ্যে বয়সে বড় ছিল কে? (জ্ঞান)

ক) বিধু✔

খ) তিনু

গ) নিধু

ঘ) বাদল

৪৮) আকাশের কোন দিকে মেঘের গুড়গুড় আওয়াজ শোনা গেল? (জ্ঞান)

ক) পূর্ব

খ) পশ্চিম✔

গ) উত্তর

ঘ) দক্ষিণ

৪৯) বৈশাখ মাসে পশ্চিম দিকে মেঘ ডাকার মানে কী? (অনুধাবন)

ক) ঘূর্ণিঝড় হওয়ার সম্ভাবনা

খ) বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা

গ) জলোচ্ছ্বাস হওয়ার সম্ভাবনা

ঘ) কালবৈশাখী ঝড় হওয়ার সম্ভাবনা✔

৫০) বাড়–য্যেদের মাঠের বাগানে কী আম বিখ্যাত? (জ্ঞান)

ক) ফজলি আম

খ) ল্যাংড়া আম

গ) চাঁপাতলীর আম✔

ঘ) রূপাতলীর আম

৫১) কালবৈশাখীর সময় শিলাবৃষ্টির মতো কী পড়ছিল? (জ্ঞান)

ক) জাম

খ) লিচু

গ) আম✔

ঘ) সফেদা

৫২) ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পে কীসের ভারে একেকজন নুয়ে পড়ছিল? (জ্ঞান)

ক) আম✔

খ) কাঁঠাল

গ) লিচু

ঘ) জাম

৫৩) লেখক কার সঙ্গে সন্ধ্যের অন্ধকারে বাড়ি ফিরছিলেন? (জ্ঞান)

ক) তিনু

খ) বাদল✔

গ) নিধু

ঘ) বিধু

৫৪) লেখক কোন দিকের পথ দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন? (জ্ঞান)

ক) বাগানের

খ) নদীর ধারের✔

গ) স্কুলের পাশের

ঘ) মসজিদের পাশের

৫৫) কীসের ভয়ে লেখক ও বাদল ডিঙিয়ে ডিঙিয়ে পথ চলছিল? (জ্ঞান)

ক) পোকা

খ) ডালের আঘাত

গ) সাপ

ঘ) কাঁটা✔

৫৬) বাদলের পায়ে কী বেঁধে হোঁচট খেয়ে পড়ে গেল? (জ্ঞান)

ক) একটি টিনের বাক্স✔

খ) একটি গাছের ডাল

গ) একটি পাথর

ঘ) একটি বাঁশ

৫৭) পাড়াগাঁয়ের লোকেরা ডাবল টিনের ক্যাশবাক্সে কী রাখে? (জ্ঞান)

ক) টাকাকড়ি ও গহনা✔

খ) জমির দলিল ও টাকাকড়ি

গ) দামি কাপড় ও শীতের কাপড়

ঘ) দামি জিনিস ও পুরনো ছবি

৫৮) টিনের বাক্স হাতে গল্পকথক ও বাদল কোথায় বসে পড়ল? (জ্ঞান)

ক) আমতলায়

খ) কাঁঠালতলায়

গ) তেঁতুলতলায়✔

ঘ) বাঁশতলায়

৫৯) কুড়িয়ে পাওয়া বাক্সটি কোথায় লুকিয়ে রাখা হলো? (জ্ঞান)

ক) বাদলদের বাড়ির বিচুলিগাদায়✔

খ) বিধুদের বাড়িতে মাটির নিচে

গ) তিনুদের বাড়ির গোয়াল ঘরে

ঘ) সিধুদের বাড়ির বিচুলিগাদায়

৬০) ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পে বর্ষার হাওয়ার সঙ্গে কোন ফুলের মিষ্টি গন্ধ ভেসে আসছে? (জ্ঞান)

ক) গন্ধরাজ

খ) গোলাপ

গ) চাঁপাফুল✔

ঘ) রজনীগন্ধা

৬১) কোন ডোবায় ব্যাঙ ডাকছিল? (জ্ঞান)

ক) রহিমদের ডোবায়

খ) বাদলদের দিদিমার ডোবায়

গ) নরহরি বোস্টমের ডোবায়✔

ঘ) গ্রামের উত্তর পাড়ের ডোবায়

৬২) কার নির্দেশমতো গুপ্ত মিটিং বসেছিল? (জ্ঞান)

ক) বাদল

খ) সিধু

গ) তিনু

ঘ) বিধু✔

৬৩) বিধু সবাইকে কী কেটে নিয়ে আসার হুকুম দিল? (জ্ঞান)

ক) ঘুড়ির মাপে কাগজ✔

খ) ঘুড়ির মাপে কলাপাতা

গ) টেবিলের মাপে কাপড়

ঘ) বইয়ের মাপে কাগজ

৬৪) বাক্সের মালিককে কোন বাড়িতে খোঁজ করার কথা বলা হয়? (জ্ঞান)

ক) মল্লিক বাড়িতে

খ) রায় বাড়িতে✔

গ) খান বাড়িতে

ঘ) চৌধুরী বাড়িতে

৬৫) কাগজ তিনটি কীসের আঠা দিয়ে গাছে গাছে মেরে দেয়া হলো? (জ্ঞান)

ক) বেলের আঠা✔

খ) কাঁঠালের আঠা

গ) রাবারের আঠা

ঘ) বটগাছের আঠা

৬৬) নিরাশ্রয় লোকটিকে দু আড়ি ধান কারা ধার দিয়েছিল? (জ্ঞান)

ক) বাদলরা

খ) নিধুরা

গ) আক্কাসরা

ঘ) গোয়ালারা✔

৬৭) নিরাশ্রয় লোকটি গত জ্যৈষ্ঠ মাসে নির্বিষখোলার হাট থেকে কী বেচে ফিরছিল? (জ্ঞান)

ক) ঢেঁড়স

খ) কুমড়া

গ) শাক

ঘ) পটোল✔

৬৮) টিনের বাক্সে কত টাকার গহনা ছিল? (জ্ঞান)

ক) সাড়ে তিনশ টাকার

খ) আড়াইশ টাকার✔

গ) পাঁচশ টাকার

ঘ) তিনশ টাকার

৬৯) টিনের বাক্সটিতে পটোল বিক্রির কত টাকা ছিল? (জ্ঞান)

ক) ত্রিশ

খ) চল্লিশ

গ) পঞ্চাশ✔

ঘ) একশত

৭০) টিনের বাক্সটি কী রঙের ছিল? (জ্ঞান)

ক) সবুজ✔

খ) লাল

গ) রুপালি

ঘ) সোনালি

পড়ে পাওয়া গল্পের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন উত্তর

প্রশ্ন ১। ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পে কে সকলের সংশয় দূর করে দিল?

উত্তর: ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পে বিধু সকলের সংশয় দূর করে দিল।

প্রশ্ন ২। বাক্স ফেরত দেয়ার কী মনে আসতেই তাদের মধ্যে কী ধরনের অনুভূতি কাজ করেছিল?

উত্তর: বাক্স ফেরত দেয়ার কথা মনে আসতেই তাদের মধ্যে ধর্মীয় অনুভূতি কাজ করছিল।

প্রশ্ন ৩। গ্রামের দুই কুমোর লেখকদের বাড়িতে কেন এসেছিল?

উত্তর: গ্রামের ভাদুই কুমোর কুয়া কাটার মজুরি চাইতে লেখকদের বাড়ি এসেছিল।

প্রশ্ন ৪। দণ্ডবৎ’ কী?

উত্তর: দণ্ডবৎ’ অর্থ মাটিতে পড়ে সাষ্টাঙ্গে প্রণাম।

প্রশ্ন ৫। চৌকিদার শব্দের অর্থ কী?

উত্তর: চৌকিদার শব্দের অর্থ প্রহরী।

প্রশ্ন ৬। বাদলদের গুপ্ত মিটিং কোথায় হলো?

উত্তর: বাদলদের গুপ্ত মিটিং বসল বাদলদের ভাঙা নাটমন্দিরের কোণে।

প্রশ্ন ৭। পত্রপাঠ বিদায় কী? অথবা, পত্রপাঠ বিদায়’ কথাটির অর্থ কী?

উত্তর: পত্রপাঠ বিদায় হচ্ছে- তৎক্ষণাৎ বিদায়।

প্রশ্ন ৮। ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পটি কোন গ্রন্থ থেকে সংকলিত?

উত্তর: ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পটি ‘নীলগঞ্জের ফালমন সাহেব’ গ্রন্থ থেকে সংকলিত।

প্রশ্ন ৯। আকাশে কালো মেঘের রাশি উড়ে আসতে লাগল কোন দিক থেকে?

উত্তর: আকাশে কালো মেঘের রাশি পশ্চিম দিক থেকে উড়ে আসতে লাগল।

প্রশ্ন ১০। বালকদের মধ্যে কার হাতের লেখা ভালো ছিল?

উত্তর: বালকদের মধ্যে বাদলের হাতের লেখা ভালো ছিল।

প্রশ্ন ১১। বিধু সকলের সংশয় দূর করে দিয়ে কী জানিয়ে দিল?

উত্তর: বিধু সকলের সংশয় দূর করে দিয়ে জানিয়ে দিল যে, ঝড় আসবে।

প্রশ্ন ১২। কাপালির হারানো বাক্সের ভেতর নগদ কত টাকা ছিল?

উত্তর: কাপালির হারানো বাক্সের ভেতর নগদ পঞ্চাশ টাকা ছিল।

প্রশ্ন ১৩। ‘পড়ে পাওয়া কী ধরনের রচনা?

উত্তর: পড়ে পাওয়া একটি কিশোর গল্প ।

প্রশ্ন ১৪। ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের লেখক কে?

উত্তর: ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের লেখক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রশ্ন ১৫। বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কত সালে জন্মগ্রহণ করেন?

উত্তর: ১৮৯৪ সালে ।

প্রশ্ন ১৬। বাদলের গুপ্ত মিটিং কোথায় হলো?

উত্তর: বাদলের গুপ্ত মিটিং হলো ভাঙা নাটমন্দিরের কোণে।

প্রশ্ন ১৭। বাক্সটি কার পায়ে বেধেছিল?

উত্তর: বাক্সটি বাদলের পায়ে বেধেছিল।

প্রশ্ন ১৮। “আপনারা মানুষ না দেবতা’- উক্তিটি কার?

উত্তর: ‘আপনারা মানুষ না দেবতা’- উক্তিটি বার ফেরত নিতে আসা কাপালি লোকটির।

প্রশ্ন ১৯। লেখক ও তার বন্ধুরা কোথায় গুপ্ত মিটিং করেছিল?

উত্তর: লেখক ও তার বন্ধুরা বাদলদের ভাঙা মন্দিরের কোণে গুপ্ত মিটিং করেছিল।

প্রশ্ন ২০। কালবোশেখির ঝড় মানেই কী?

উত্তর: কালবোশেখির ঝড় মানেই আম কুড়ানো।

প্রশ্ন ২১। চিরকাল কে লেখক ও তার বন্ধুদের সংশয় দূর করে এসেছে?

উত্তর: নিধু লেখক ও তার বন্ধুদের সংশয় চিরকাল দূর করে এসেছে।

প্রশ্ন ২২। শিলাবৃষ্টির মতো কী ঝরছে?

উত্তর: আম করছে।

প্রশ্ন ২৩। টাকাকড়ি রাখার বাক্সকে পাড়াগায়ে কী বলে?

উত্তর: টাকাকড়ি রাখার বাক্সকে পাড়াগাঁয়ে ডবল টিনের ক্যাশ বাক্স বলে।

প্রশ্ন ২৪। ক্যাশ বাজটি কারা কুড়িয়ে পেয়েছে?

উত্তর: লেখক ও তার বন্ধু বাদল।

প্রশ্ন ২৫। কে ঘুড়ির মাপে কাগজ কেটে নিয়ে আসার নির্দেশ দিল?

উত্তর: বিধু ঘুড়ির মাপে কাগজ কেটে নিয়ে আসার নির্দেশ দিল ।

প্রশ্ন ২৬। “বাবু, ইদিরভীষণ কার নাম?”- এ প্রশ্ন কাকে করা হয়েছিল?

উত্তর: এ প্রশ্ন লেখককে করা হয়েছিল।

প্রশ্ন ২৭। বন্যায় কারা নিরাশ্রয় হয়ে গেল?

উত্তর: বন্যায় অম্বরপুর চরের কাপালিরা নিরাশ্রয় হয়ে গেল।

প্রশ্ন ২৮। দুই কুমোর কী চাইতে এসেছে?

উত্তর: কুয়ো কাটানো মজুরি।

প্রশ্ন ২৯। “আজ এখানে দুটি ডাল-ভাত খেও।”- এটা কাকে বলা হয়েছে?

উত্তর: এটা অম্বরপুর চরের এক কাপালিকে বলা হয়েছে।

প্রশ্ন ৩০। বিধু ভবিষ্যতে কী হবে বলে সকলের ধারণা?

উত্তর: বিধু ভবিষ্যতে উকিল হবে বলে সকলের ধারণা।

প্রশ্ন ৩১। কাপালি লোকটার চোখ দিয়ে কেন জল ঝরতে লাগল?

উত্তর: বাক্স ফিরে পাওয়ার আনন্দে কাপালি লোকটার চোখ দিয়ে জল ঝরতে লাগল।

প্রশ্ন ৩২। কতক্ষণের মধ্যে চণ্ডীমণ্ডপের সামনে ভিড় জমে গেল?

উত্তর: আধঘণ্টার মধ্যে চণ্ডীমণ্ডপের সামনে ভিড় জমে গেল।

প্রশ্ন ৩৩। লেখক নদীর চরে কাদের ছোট ছোট ঘরবাড়ি দেখেছেন?

উত্তর: লেখক নদীর চরে কাপালিদের ছোট ছোট ঘরবাড়ি দেখেছেন।

প্রশ্ন ৩৪। কালোমতো লোকটি কত দিন পর এসে বাক্স দাবি করল?

উত্তর: কালোমতো লোকটি তিন দিন পর এসে বাক্স দাবি করল ।

প্রশ্ন ৩৫। কোথায় ব্যাঙ ডাকছে?

উত্তর: নরহরি বোস্টমের ডোবায় ব্যাঙ ডাকছে।

পড়ে পাওয়া গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর

প্রশ্নঃ- ১) আরিফ টেক্সি ক্যাব চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে। একবার একজন আরোহীকে গন্তব্যে পৌঁছে দিয়ে সে বিশ্রাম নিচ্ছিল। সহসা গাড়ির ভিতরে দৃষ্টি পড়তে সে দেখতে পেল একটি মানিব্যাগ সিটের ওপর পড়ে আছে। ব্যাগে অনেকগুলো ডলার। কিন্তু ব্যাগে কোনো ঠিকানা পাওয়া গেল না। সে সন্ধ্যা অবধি অপেক্ষা করল। নিরুপায় হয়ে সে পত্রিকা অফিসে গিয়ে সম্পাদককে একটি বিজ্ঞপ্তি ছাপিয়ে দেবার অনুরোধ জানায়।

ক) ‘পড়ে পাওয়া’ কী ধরনের রচনা?

উত্তর//  পড়ে পাওয়া একটি কিশোর গল্প।

খ) “ওর মতো কত লোক আসবে” – বিধুর এ কথাটির অর্থ বুঝিয়ে লেখো।

উত্তর// বাক্সের দাবি করতে আসা একজন নকল মালিককে কেন্দ্র করে বিধু উক্ত মন্তব্যটি করেছিল।

পড়ে পাওয়া বাক্সটি সঠিক মালিকের হাতে ফিরিয়ে দিতে পড়ে পাওয়া গদ্যের কিশোররা একটি বিজ্ঞপ্তি লিখে নদীর ধারে বিভিন্ন গাছে আটকে দেয়। তখন লোভে পড়ে এক লোক মালিক সেজে বাক্সটির মালিকানা দাবি করেন। লোকটি চলে যাওয়ার পর বিধু উক্ত ঘটনাটি জানতে পেরে বলে এমন আরো অনেকেই বাক্সের মিথ্যা দাবি নিয়ে আসবে।

গ) উদ্দীপকের আরিফকে কোন যুক্তিতে বিধুদের সঙ্গে তুলনা করা যায়? – বুঝিয়ে লেখো।

উত্তর// উদ্দীপকের আরিফকে নৈতিকতার দৃষ্টিকোণ থেকে পড়ে পাওয়া গল্পের বিধুদের সঙ্গে তুলনা করা যায়।

পড়ে পাওয়া গদ্যে কুড়িয়ে পাওয়া অর্থ সম্পদ দিয়ে কিশোররা লোভের পরিচয় দেয়নি। তারা বয়সের চেয়েও বেশি দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়েছে। কিশোররা পড়ে পাওয়া বাক্সটি সঠিক মালিককে ফেরত দিতে কাগজে লিখে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে প্রাপককে তা ফেরত দিয়েছে।

উদ্দীপকের আরিফ এবং গল্পের বিধু ও তার বন্ধুরা উভয়ই পড়ে পাওয়া জিনিসের প্রতি লোভ দেখায় নি। দায়িত্বশীলতার পরিচয় এর মধ্য দিয়ে তাদের উভয়ের চরিত্রে নৈতিকতার বিষয়টি প্রকাশিত হয়েছে।উদ্দীপকের আরিফ মানিব্যাগের মালিককে খুঁজে বের করার আপ্রাণ চেষ্টা চালায়। অন্যদিকে, কিশোর বয়সে বিধুরা  পড়ে পাওয়া টিনের ক্যাশবাক্সটি প্রকৃত মালিককে ফেরত দেয়। পড়ে পাওয়া গদ্যের এ দিকটি উদ্দীপকের আরিফের বিধুদের নৈতিকতা ও মানসিকতার সঙ্গে তুলনা করা যায়।

ঘ) ‘কলেবরে ক্ষুদ্র হলেও আরিফ চরিত্রটি ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের মূল সুরকেই ধারণ করে আছে’ –  মূল্যায়ন করো।

উত্তর// উদ্দীপকের আরিফের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে তার নির্লোভ মানসিকতার পরিচয় পাওয়া যায়। যা পড়ে পাওয়া গল্পের মূল সুরকেই ধারণ করে আছে।

পড়ে পাওয়া গদ্যে একদল কিশোর একটি টিনের বাক্স কুড়িয়ে পেয়ে তা সঠিক ঠিকানা ফেরত দেওয়ার জন্য সর্বাত্মকভাবে চেষ্টা করে। এক্ষেত্রে তাদের নির্লোভ মানসিকতার পরিচয় পাওয়া যায়।

উদ্দীপকের টেক্সি ক্যাব চালক আরিফ হঠাৎ অন্যের একটি মানিব্যাগ কুড়িয়ে পায়। তার গাড়িতে একজন আরোহীর ভুল করে রেখে যাওয়া মানিব্যাগটি প্রকৃত মালিককে ফিরিয়ে দেওয়ার ইচ্ছায় সে পত্রিকা অফিসে ছুটে যায়।

অন্যের ধনসম্পদের ব্যাপারে নির্লোভ মানসিকতার পরিচয় দেওয়াই পড়ে পাওয়া গল্পের মূল বক্তব্য। কিশোর ছেলেদের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে গল্পে এ বক্তব্যটি স্পষ্ট করা হয়েছে। অন্যদিকে, উদ্দীপকটি কলেবর স্বাভাবিকভাবেই গল্পের তুলনায় ক্ষুদ্র। তবে এরও মূলসুর গল্পের অনুরুপ। আর তা হলো অন্যের সম্পদ আত্মসাৎ না করে তার যথার্থ মালিকের কাছে পৌঁছে দেওয়াই ন্যায় সঙ্গত।

প্রশ্নঃ- ২) সন্ধ্যায় দেখা গেল, নিজেদের ছাগলের সাথে অতিরিক্ত একটি ছাগলও আথালে ঢুকছে। এশার নামাজ পার হয়ে গেল, কিন্তু কেউ খোঁজ নিতে এলো না। দাদু বললেন, না, না চুপ করে থাকা ঠিক হবে না। এক কাজ কর, রফিক-শফিক বেরিয়ে পড়। প্রতিবেশীর নাবিল আর তালিমকে সাথে নিয়ে দুজন দুদিকে যেও। মসজিদ থেকে চোঙ্গা নিয়ে গাঁয়ে ঘোষণা দিয়ে আসো। কিছুক্ষণের মধ্যে দুভাই দাদুর পরামর্শমতো বলতে লাগল, ভাইসব, একটি ছাগল পাওয়া গেছে। যাদের ছাগল তারা দয়া করে মতিন শিকদারের বাড়ি থেকে নিয়ে যান।

ক) লেখক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় কোন ধরনের লেখক হিসেবে সমধিক পরিচিত?

উত্তর//বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় নিসর্গের রূপকার হিসেবে সমধিক পরিচিত।

খ) ‘দুজনই হঠাৎ ধার্মিক হয়ে উঠলাম’- কথাটি দ্বারা কি বোঝানো হয়েছে?

উত্তর// পড়ে পাওয়া টিনের বাক্সটি আত্মসাৎ না করে তার মালিকের কাছে পৌঁছে দেওয়ার ইচ্ছা সম্পর্কে বলা হয়েছে- ‘দুজনেই হঠাৎ ধার্মিক হয়ে উঠলাম।’

পড়ে পাওয়া গদ্যে দুই কিশোর গল্পকথক ও বাদল অন্ধকারে একটি টিনের বাক্স কুড়িয়ে পায়। প্রথমে লোভের বশবর্তী হয়ে তারা বাক্সের সবকিছু নিজেরা নিবে বলে ঠিক করে। কিন্তু পরক্ষনেই তারা অনুভব করে যে এটি অত্যন্ত অন্যায় কাজ হবে। ফলে বাক্সটি তারা প্রকৃত মালিককে ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। দুজনেরই শুভবুদ্ধি উদয় হওয়াকেই কথক হঠাৎ ধার্মিক হওয়া বলে অভিহিত করেছেন

গ) রফিক-শফিকের চোঙ্গা ফোঁকার ঘটনাটি পড়ে পাওয়া গল্পের কোন ঘটনার সাথে সংগতিপূর্ণ? ব্যাখ্যা করো।

উত্তর// পড়ে পাওয়া গল্পের কিশোরদের নদীর ধারের কাছে পোস্টার লাগানোর সঙ্গে উদ্দীপকের রফিক-শফিকের চোঙ্গা ফোঁকার ঘটনাটি সংগতিপূর্ণ।

পড়ে পাওয়া গদ্যে কুড়িয়ে পাওয়া টিনের ক্যাশ বাক্সের সংবাদ একটা কাগজে লিখে কিশোররা নদীর ধারের গাছে টানিয়ে দেয়। উভয় ক্ষেত্রে অন্যের সম্পদ পাওয়ার সংবাদটি সবাইকে জানানো এবং এর যথার্থ মালিককে খুঁজে বের করাই ছিল মূল লক্ষ্য।

পড়ে পাওয়া সম্পদের মালিককে খুঁজে পেতে চাইলে প্রাপ্তি সংবাদটি সবাইকে জানানোর বিকল্প নেই। গদ্যে ও উদ্দীপকে অনুরূপ ভাবনার প্রকাশ ঘটতে দেখা যায়। উদ্দীপকে ছাগল প্রাপ্তির সংবাদ প্রচারে দাদুর নির্দেশমতো রফিক শফিক মসজিদের চোঙ্গা নিয়ে সবার মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করে। এদিক থেকে ঘটনা দুটি পরস্পর সাদৃশ্যপূর্ণ।

ঘ) উদ্দীপকের দাদু যেন পড়ে পাওয়া গল্পের মূল প্রতিভূ। বিশ্লেষণ করো।

উত্তর// উদ্দীপকের দাদু নৈতিক চেতনা ও দায়িত্ববোধের পরিচয় দিয়ে পড়ে পাওয়া গল্পের মূল চেতনারই প্রতিনিধি হয়ে উঠেছেন।

পড়ে পাওয়া গল্পের কিশোররা সম্পদের প্রতি লোভ না দেখিয়ে তা ফিরিয়ে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। এক্ষেত্রে তাদের নির্লোভ মানসিকতার পরিচয় পাওয়া যায়। সততা, নিষ্ঠা ও কর্তব্যবোধ এর পাশাপাশি তারা তাদের দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়েছে।

পড়ে পাওয়া গদ্যে কিশোরদের চেতনা ও কাজ করবে সঙ্গে উদ্দীপকের দাদুর চরিত্রটি বেশ মিলে যায়। তিনি আঁধারে ধোকা অতিরিক্ত ছাগলটি মালিককে ফিরিয়ে দিতে মনস্থির করেন এবং সে লক্ষ্যেই রফিক-শফিককে সংবাদটি প্রচার এর জন্য বেরিয়ে পড়ার আদেশ দেন।

উদ্দীপকের দাদু ছাগল প্রকৃত মালিকের ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে দ্বিধাহীন। গল্পের কিশোরদের মাঝেও একই প্রবণতার পরিচয় পাওয়া যায়। ফলে উদ্দীপকের দাদু তার কাজের মাধ্যমেই সেসব কিশোরের চিন্তার প্রতিচ্ছবি হয়ে উঠেন।

প্রশ্নঃ- ৩। সোনালী ব্যাংকের পিয়ন রতন অফিস ছুটি হওয়ার পর ম্যানেজারের রুম গোছাতে গিয়ে একটি সোনার আংটি পায়। আংটি পেয়ে তার খুব লোভ হলো, সে মনে মনে ভাবল তার মেয়েকে এটা উপহার হিসেবে দেবে। কিন্তু ঘটনাটি তার মনের মধ্যে অপরাধবোধের জন্ম দিল। তাই সে পরদিন অফিসে গিয়ে ম্যানেজারের নিকট আংটিটি ফেরত দিয়ে ভারমুক্ত হলো। ম্যানেজারও তার সততায় খুশি হয়ে থাকে পুরস্কৃত করলেন।

ক) বোষ্টম কী?

খ) ওর মতো কত লোক আসবে’- উক্তিটি দ্বারা কী বোঝানো হয়েছে?

গ) উদ্দীপকের রতন ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের কার প্রতিনিধিত্ব করে এবং কীভাবে?

ঘ) উদ্দীপক এবং গল্পের মূলভাব কর্তব্যপরায়ণতা এবং নৈতিক চেতনার-ই পরিচায়ক’- উক্তিটি বিশ্লেষণ করাে।

৩ নম্বর প্রশ্নের উত্তর

ক। বোষ্টম হলো- হরিনাম সংকীর্তন করে জীবিকা অর্জন করে এমন বৈষ্ণব।

খ। বাক্সের দাবি করতে আসা একজন নকল মালিব করে বিধু মন্তব্যটি করেছিল।

পড়ে পাওয়া বাক্সটি সঠিক মালিকের হাতে ফিরিয়ে দিতে ছেলেরা একটি বিজ্ঞপ্তি লিখে নদীর ধারে বিভিন্ন গাছে আটকে দেয়। তখন লোভে পড়ে এক লোক মালিক সেজে বাক্সটির মালিকানা দাবি করে। কিন্তু কথকের জেরার মুখে সত্য ব্যাপারটি প্রকাশিত হয়। লোকটি চলে যাওয়ার পর বিধু ঘটনাটি জানতে পেরে বলে, এমন আরও অনেকেই বাক্সের মিথ্যা দাবি নিয়ে আসবে।

গ। উদ্দীপকের রতন ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের কিশোরদের প্রতিনিধিত্ব করে।

পড়ে পাওয়া’ গল্পে একদল কিশোরের সততার কথা উঠে এসেছে। তারা একটি মূল্যবান টিনের ক্যাশ বাক্স কুড়িয়ে পেলেও তা আত্মসাৎ না করে প্রকৃত মালিককে ফিরিয়ে দেওয়ার সংকল্প করে। এক্ষেত্রে তাদের নির্লোভ মানসিকতার পরিচয় পাওয়া যায়।

উদ্দীপকের রতন ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের কিশোরদের মতোই নৈতিক চরিত্রের অধিকারী। সোনার আংটি কুড়িয়ে পেয়েও সে আত্মসাৎ করেনি। বরং তার মালিককে ফিরিয়ে দিয়েছে। ‘পড়ে পাওয়া গল্পের কিশোরদের আচরণেও এ বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। দীর্ঘদিন পরে হলেও তারা টিনের ক্যাশ বাক্সটি প্রকৃত মালিকের হাতে তুলে দিয়ে সততা ও দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেয়। এভাবে উদ্দীপকের রতন ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের কিশোরদের প্রতিনিধিত্ব করে।

ঘ। উদ্দীপক এবং গল্পের মূলভাব কর্তব্যপরায়ণতা এবং নৈতিক চেতনার-ই পরিচায়ক’- উক্তিটি যথার্থ।

“পড়ে পাওয়া’ গল্পে কর্তব্যপরায়ণতা এবং নৈতিক চেতনার শিল্পময় প্রকাশ লক্ষ করা যায়। কারো হারানো জিনিস তাকে ফিরিয়ে দেওয়ার মাঝে আনন্দ আছে। তাছাড়া এর মাধ্যমে ফেরতদাতার চরিত্রের সততা ও নৈতিকতার প্রকাশ ঘটে। ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের কিশোরদের মাধ্যমে এই সত্যটাই প্রকাশ পেয়েছে।

উদ্দীপকের রতন অফিস ছুটির পর ম্যানেজারের রুম গোছাতে গিয়ে একটি আংটি কুড়িয়ে পায়। প্রথমে তার লােভ হওয়ায় সেভাবে এটি তার মেয়েকে হার দেবে। পরক্ষণেই সে অপরাধবোধে জর্জরিত হয় এবং আংটিটি তার মালিককে ফিরিয়ে দিয়ে ভার মুক্ত হয়। তার মধ্যে ব্যপরায়ণতা ও নৈতিক চেতনাবোধ জাগ্রত হওয়ার কারণেই এটি সম্ভব হয়েছে।

পড়ে পাওয়া’ গল্প এবং উদ্দীপকটি বিশ্লেষণে বলা যায়, ঘটনা ভিন্ন হলেও উভয়ক্ষেত্রেই একই চেতনার প্রকাশ ঘটেছে। উদ্দীপকের রতন ও গল্পের কিশোররা অন্যের সম্পদ আত্মসাৎ না করে তা প্রকৃত মালিককে ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে দ্বিধাহীন ছিল। কিশােরদের সততা, কর্তব্যপরায়ণতা ও নৈতিকতার দিকটি রতনের কর্মকাণ্ডেও লক্ষণীয়। সুতরাং উদ্দীপক এবং গল্পের মূলভাব কর্তব্যপরায়ণতা এবং নৈতিক চেতনারই পরিচায়ক’- উক্তিটি যথার্থ ।

প্রশ্ন ৪। অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা শিক্ষা সফরে এসে দেখতে পায় একটি শিশু মা-বাবাকে হারিয়ে একাকী কাদছে। দুরন্ত শিক্ষার্থীরা কয়েকটি দলে বিভক্ত হয়ে শিশুর মা-বাবাকে খুঁজে বের করার চ্যালেঞ্জ নেয়। অবশেষে খুঁজেও পায়। শিক্ষা সফরের আনন্দের সাথে যুক্ত হয় নিজেদের কর্তব্যবোধ, বুদ্ধিমত্তা এবং মানবিকতার আনন্দ।

ক) বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় চব্বিশ পরগনা জেলার কোন গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন?

খ) তুমি পড়ো না, তোমার সে খোজে কী দরকার?’ কথাটি বুঝিয়ে দাও।

গ) উদ্দীপকের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদেরকে পড়ে পাওয়া গল্পের কাদের সাথে তুলনা করা যায়? ব্যাখ্যা করো।

ঘ) “উদ্দীপকটি পড়ে পাওয়া’ গল্পের মূল চেতনারই প্রতিভূ”- উক্তিটির সত্যতা নিরূপণ করো।

৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তর

ক। বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় চব্বিশ পরগনা জেলার মুরাতিপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

খ। বড়দের কথার মধ্যে হঠাৎ করে প্রশ্ন করায় গল্পকথকের বাবা তাকে ধমক দিয়ে আলোচ্য উক্তিটি করেন।

কাপালি সম্প্রদায়ের এক লোক একদিন চাকরির খোঁজে লেখকদের বাড়িতে আসে। লেখকের বাবার সাথে কথােপকথনের এক পর্যায়ে লোকটি তার হারানো ক্যাশ বাক্সটির প্রসঙ্গ তোলে। সে সময় গল্পকথকেরা দুই ভাই পড়ছিলেন। হারানো বাক্সটির প্রসঙ্গ উঠতেই লেখক কান খাড়া করে শুনতে লাগলেন। তখন লেখক জিজ্ঞাসা করলেন যে, হারানো বাক্সটি কী রংয়ের ছিল? পড়া বাদ দিয়ে বড়দের কথার মধ্যে কথা বলায় লেখকের বাবা তাকে ধমক দেন এবং আলোচ্য উক্তিটি করেন।

গ। উদ্দীপকের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদেরকে পড়ে পাওয়া’ গল্পের কিশোরদের সাথে তুলনা করা যায়।

কারো হারানো জিনিস তাকে ফিরিয়ে দেওয়ার মাঝে এক ধরনের আনন্দ আছে। আর এর মাধ্যমে ফেরতদাতার চরিত্রের সততা ও নৈতিকতা প্রকাশ পায়। সেই সাথে তার দায়িত্বশীলতাও ফুটে উঠে। উদ্দীপকের শিক্ষার্থীরা এবং আলোচ্য গল্পের কিশােররা এর বাস্তব দৃষ্টান্ত।

উদ্দীপকের শিক্ষার্থীদের মাঝে নৈতিক দায়িত্বশীলতার পরিচয় পাওয়া যায়। অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা শিক্ষা সফরে এসে দেখতে পায় একটি শিশু বাবা-মাকে হারিয়ে একাকী কাঁদছে। শিশুটির প্রতি তাদের মায়া হয় এবং তারা শিশুকে তার -মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিতে বদ্ধ পরিকর হয়। তারা কয়েকটি দলে বিভক্ত হয়ে শিশুটির বাবা-মাকে খুঁজতে থাকে। অবশেষে তারা শিশুটিকে তার বাবা-মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিতে সক্ষম হয়। শিক্ষার্থীদের এই বুদ্ধিমত্তা ও দায়িত্ববোধের পরিচয় পাই পড়ে পাওয়া’ গল্পের কিশােরদের মাঝেও। তারা কুড়িয়ে পাওয়া ক্যাশবাক্স আত্মসাৎ না করে প্রকৃত মালিককে খুঁজে তা ফিরিয়ে দেয়। কিশোরদের এই নৈতিক দায়িত্ববােধ ও বিচক্ষণতার সাথে উদ্দীপকের শিক্ষার্থীদের মিল রয়েছে।

ঘ। ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের মূল চেতনা হলো নৈতিক চেতনার সৃষ্টি ও কর্তব্যপরায়ণতা, যা উদ্দীপকেও ফুটে উঠেছে।

শিক্ষার আসল উদ্দেশ্য হলো মানুষের মনুষ্যত্বের বিকাশ ঘটানো। শিক্ষার আলোয় নিজেকে আলোকিত করে নৈতিকতা ও দায়িত্বশীলতার মধ্য দিয়েই মানবজীবনের সার্থকতা সৃচিত হয়। দেশ ও জাতির কল্যাণ করতে হলে তাই সততা ও নৈতিকতা চর্চার পাশপাশি কর্তব্যপরায়ণ হয়ে উঠতে হবে।

উদ্দীপকে শিক্ষার্থীরা নৈতিকতা এবং দায়িত্বশীলতার দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করেছে। শিক্ষা সফরে গিয়ে তারা বাবা-মা হারানাে এক শিশুকে একাকী কাদতে দেখে। শিশুটির প্রতি তাদের মায়া হয়। তারা সিদ্ধান্ত নেয় যে, শিশুটিকে তারা তার বাবা-মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিবে। কেননা, এটা তাদের নৈতিক দায়িত্ব। তারা কয়েকটি দলে বিভক্ত হয়ে শিশুর বাবা-মাকে খুঁজে বের করে এবং শিশুটিকে তাদের নিকট ফিরিয়ে দেয়।

পড়ে পাওয়া’ গল্পে আমরা একদল কিশোরদের নৈতিক দায়িত্বশীলতার পরিচয় পাই। এ গল্পে কিশোররা পড়ে পাওয়া অর্থ-সম্পদ নিয়ে লোভের পরিচয় দেয়নি। বরং দায়িত্বশীলতার সাথে প্রকৃত মালিককে খুঁজে বের করে এবং তাকে তার অর্থ ফিরিয়ে দেয়। উদ্দীপকেও আমরা দেখি যে, শিক্ষার্থীরা দায়িত্ব নিয়ে শিশুটিকে তার বাবা মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেয়। তারা শিক্ষা সফরে গিয়ে নিছক আনন্দ ভ্রমণে মত্ত না হয়ে নৈতিক দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেয়। তাই “উদ্দীপকটি যেন ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের মূল চেতনারই প্রতিভূ।”- এ উক্তিটি যথার্থ ।

প্রশ্ন ৫। রিপন স্কুলে যাওয়ার পথে একটি মানিব্যাগ কুড়িয়ে পেল। মানিব্যাগের ভেতর থেকে মালিকের ঠিকানা পেয়ে অনেক কষ্ট করে ফেরত দিয়ে এলো। লোকটি অবাক হয়ে দেখল, মানিব্যাগে সবকিছু ঠিকমতো আছে। এতটুকু ছেলের সততা লোকটিকে মুগ্ধ করে।

ক) “পড়ে পাওয়া’ গল্পে লেখকের ছেলেবেলার কোন সময়টার কথা বলা হয়েছে?

খ) তিনখানা কাগজ লিখে নদীর ধারের গাছে লাগানো হলো কেন?

গ) উদ্দীপকের বর্ণিত ঘটনার সাথে পড়ে পাওয়া’ গল্পের মিলগুলো লেখো।

ঘ) এতটুকু ছেলের সততা লোকটিকে মুগ্ধ করে।’ এই বক্তব্যটির সাথে পড়ে পাওয়া’ গল্পের মূল বক্তব্য লুকায়িত লেখো।

৫ নম্বর প্রশ্নের উত্তর

ক। পড়ে পাওয়া’ গল্পে লেখকের ছেলেবেলার কৈশোরের কথা বলা হয়েছে।

খ। কাগজগুলো পড়ে বাক্সের মালিক যাতে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে তাই তিনখানা কাগজ লিখে নদীর ধারের গাছে লাগানো হলো।

‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের কিশােররা ঝড়ের রাতে কুড়িয়ে পাওয়া বাক্সটি ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনা অনুযায়ী তারা ঘুড়ির মাপে তিনটি কাগজে বাক্স পাওয়ার খবর এবং খুঁজে পাওয়ার স্থান লিখে নদীর ধারের রাস্তায় ভিন্ন ভিন্ন গাছে আঠা দিয়ে লাগিয়ে দেয়। যেন তা পড়ে বাক্সের মালিক তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে।

গ। সততা ও নৈতিকতার দিক থেকে উদ্দীপকের বর্ণিত ঘটনার সাথে পড়ে পাওয়া’ গল্পের মিলটি রয়েছে।

‘পড়ে পাওয়া’ গল্পে একদল কিশোরের সততার কথা উঠে এসেছে। তারা একটি মূল্যবান টিনের ক্যাশ বাক্স কুড়িয়ে পেলেও তা আত্মসাৎ না করে প্রকৃত মালিককে ফিরিয়ে দেওয়ার সংকল্প করে। এক্ষেত্রে তাদের নির্লোভ মানসিকতার পরিচয় পাওয়া যায় ।

উদ্দীপকের বর্ণিত ঘটনাগুলোও পড়ে পাওয়া’ গল্পের দিকগুলোকে তুলে ধরে। কেননা, এখানেও নৈতিকতার পরিচয় পাই রিপন চরিত্রের মাধ্যমে। স্কুলে যাওয়ার পথে মানিব্যাগ কুড়িয়ে পায় | রিপন ব্যাগের ভেতর থাকা ঠিকানার মাধ্যমে সে প্রকৃত মালিককে ব্যাগটি ফিরিয়ে দেয়। অক্ষত মানিব্যাগ পেয়ে ব্যাগের মালিক রিপনের সততায় মুগ্ধ হয়। ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পেও কিশোরদের আচরণে নিঃস্ব কাপালিক মুগ্ধ হয়ে যায়। কেননা, কিশোরদের এমন সততা, নিষ্ঠা ও কর্তব্যবোধে কাপালিক বিস্মিত। সততা, নিষ্ঠা, উন্নত মানবিকবোধের দিকটিগুরোই ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের সাথে উদ্দীপকের বর্ণিত ঘটনার সাদৃশ্য রচনা করে।

ঘ। রিপনের সততা, নিষ্ঠা ও কর্তব্যবোধ, ‘পড়ে পাওয়া’ গল্পের মূল বক্তব্যকে ধারণ করে।

পড়ে পাওয়া’ গল্পের গল্পকথক এবং তার বন্ধু বাদল একটি টিনের ক্যাশ বাক্স কুড়িয়ে পায়। বাক্সটি প্রকৃত মালিককে ফেরত দেওয়ার জন্য তারা পরিকল্পনা করে। অবশেষে বাক্সটি প্রকৃত মালিককে ফেরত দিতে সক্ষম হয়। কিশোরদের সততা দেখে বাক্সটির মালিক কাপালিক বিস্মিত হয়ে যায় ।

উদ্দীপকের রিপন স্কুলে যাওয়ার পথে মানিব্যাগ কুড়িয়ে পায়। ব্যাগের ভেতরে টাকা পেয়েও সে ব্যাগটি প্রকৃত মালিককে ফেরত দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে। অবশেষে ব্যাগের ভেতরে থাকা ঠিকানার মাধ্যমে অতি কষ্টে সে ব্যাগটি মালিককে ফেরত দিতে সমর্থ হয়। রিপনের সততা দেখে লােকটি মুগ্ধ হয়ে যায়। কেননা, ব্যাগের ভেতরে সবকিছুই ঠিকঠাক ছিল। এখানে রিপনের নৈতিকতা লোকটিকে বিস্মিত করে।

‘পড়ে পাওয়া’ গল্পে কিশােররা কুড়িয়ে পাওয়া অর্থ-সম্পদ নিয়ে লোভের পরিচয় দেয়নি। বরং তারা অনেক বেশি দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়েছে। তাদের চারিত্রিক দৃঢ়তার কারণে বাক্সটি প্রকৃত মালিককে ফেরত দিতে সমর্থ হয়। কিশোরদের এমন সততা, নিষ্ঠা ও কর্তব্যবোধে বাক্সটির মালিক নিঃস্ব কাপালিক বিস্মিত হয়ে যায়। উদ্দীপকেও রিপন কুড়ানো মানিব্যাগ প্রকৃত মালিককে ফেরত দেয়। রিপনের সততা লোকটিকে মুগ্ধ করে। নিজেদের লোভ সংযত করে প্রকৃত মালিককে তাদের হারানো সম্পদ ফিরিয়ে দেওয়ার মাঝে আছে সততা, নিষ্ঠা ও দায়িত্বশীলতার পরিচয়। এদিকটির মধ্যেই পড়ে পাওয়া’ গল্পের এবং উদ্দীপকের বর্ণিত ঘটনার মূল বক্তব্য লুকায়িত।

Download From Google Drive

Download

আরো পড়ুনঃ-

Download From Yandex

Download