সমাজসেবা অধিদপ্তরের হাউজ প্যারেন্ট কাম টিচার পদের নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন সমাধান-২০২০

0
111

সমাজসেবা অধিদপ্তরের হাউজ প্যারেন্ট কাম টিচার

পদের নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন সমাধান-২০২০

পদের নামঃ- হাউজ প্যারেন্ট কাম টিচার/ সাঁট মুদ্রাক্ষরিক কাম কম্পিউটার অপারেটর

পরীক্ষার তারিখঃ-২০/১১/২০২০

বাংলা প্রশ্ন সমাধানঃ-

অর্থসহ বাক্য লিখুন: 

ক.আক্কেল সেলামি= উত্তরঃ বোকামির দন্ড (বাজার না বুঝে পিঁয়াজ মজুদ করে আমাকে আক্কেল সেলামি ১ লাখ টাকা দিতে হলো।

খ. একাদশে বৃহস্পতি= উত্তরঃ সৌভাগ্যের বিষয় (সুমনের এখন একাদশে বৃহস্পতি যেটা ধরে সেটাই সোনা হয়)

গ. গড্ডালিকা প্রবাহ= উত্তরঃ অন্ধ অনুকরণ (বিত্তের মোহে সমাজের অনেক লোক গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে দেয়)

ঘ. জিলাপির প্যাঁচ= উত্তরঃ কুটিল বুদ্ধি (সুমনের মাথায় শুধু জিলাপির প্যাঁচ  ভাল কাজের কোন নাম নাই)

ঙ. গোঁফ খেজুরে=উত্তরঃ নিতান্ত অলস (সুমনের মত গোঁফ খেজুরে লোক খুবই কম আছে)

২. এককথায় প্রকাশ করুন

ক. ইষৎ  আমিষ গন্ধ  যার=উত্তরঃ আঁষটে

খ. যে পুরুষ বিয়ে করেছে= উত্তরঃ কৃতদার

গ. যে মেয়ের বিয়ে হয়নি= উত্তরঃ কুমারী (আর যে নারীর বিয়ে হয় না= অনূঢ়া)

ঘ. যে ক্রমাগত রোদন করছে= উত্তরঃ রোরুদ্যমান

ঙ. যে ভবিষ্যৎ না ভেবে কাজ করে= উত্তরঃ অবিমৃষ্যকারী

কারক ও বিভক্তি নির্ণয় করুন:

ক. ডাক্তার ডাক।  উত্তরঃ কর্মকারকে শূন্য বিভক্তি

খ. তিলে তৈল আছে। উত্তরঃ অধিকরণে ৭মী বিভক্তি

গ. বিপদে মোরে করিবে  ত্রাণ এ নহে মোর প্রার্থনা। উত্তরঃ অপাদানে সপ্তমী বিভক্তি

ঘ. আকাশে চাঁদ উঠেছে। উত্তরঃ অধিকরণে সপ্তমী বিভক্তি

ঙ.  মা শিশুকে চাঁদ দেখাচ্ছেন। উত্তরঃ  প্রযোজক কর্তা কারকে শূন্য বিভক্তি

সন্ধি বিচ্ছেদ করুন:

ক. অত্যুক্তি=উত্তরঃ অতি+উক্তি

খ.  গবেষণা= উত্তরঃ গো + এষণা

গ.   স্বাগত= উত্তরঃ সু + আগত

ঘ.  সংলাপ= উত্তরঃ সম্‌ + লাপ

ঙ.   পদ্ধতি= উত্তরঃ পদ্‌ + হতি

ইংরেজি প্রশ্ন সমাধানঃ-

৫. Make Sentences with the following

  1. a) In lieu of উত্তরঃ পরিবর্তে (Give me this pen in lieu of that)
  2. b) By fits and starts উত্তরঃ অনিয়মিতভাবে/মাঝেমাঝে ( Marzia has been working on her master’s thesis in fits and starts)
  3. c) At large উত্তরঃ মুক্তভাবে (Birds fly at large in the sky)
  4. d) Safe and Sound উত্তরঃ নিরাপদে ত্ত অক্ষতদেহে ( Marzia has arrived safe and sound in the hostel)
  5. e) Red letter day উত্তরঃ স্মরণীয় দিন (21 February is a red letter day in the history of Bangladesh)

৬. Translate into English:

  1. a) আমি ঢাকার টিকিট কিনেছি। উত্তরঃ I bought a ticket to Dhaka.
  2. b) অপমানের চেয়ে মৃত্যু শ্রেয়। উত্তরঃ Death is preferable to dishonour.
  3. c) আমি যদি রাজা হতাম। উত্তরঃ If I were a king.
  4. d) রমনা পার্কের প্রাকৃতিক দৃশ্য মনোরম। উত্তরঃ The scenery of Ramna Park is charming.
  5. e) আমি সাত বছর যাবৎ ওকালতি করছি। উত্তরঃ I have been practicing law for seven years

৭. Correct the following sentences

  1. a) I was borne in Bangladesh. উত্তরঃ I was born in Bangladesh
  2. b) There were six student in the class. উত্তরঃ There were six students in the class.
  3. c) He bought a lot of salt and sugar. উত্তরঃ He bought much salt and sugar.
  4. d) He made an insulted remarks about her. উত্তরঃ He made an insulting remarks about her.
  5. e) Swim is a good exercise. উত্তরঃ Swimming is a good exercise.

৮. Fill in the blanks with appropriate preposition:

  1. a) I am tired ———-this monotonous job. উত্তরঃ of
  2. b) Please abide———– the rules. উত্তরঃ by
  3. c) He starts me ——the face. উত্তরঃ at
  4. d) The pen is——— the table. উত্তরঃ on
  5. e) Do not laugh ———the poor. উত্তরঃ at

গণিত প্রশ্ন সমাধানঃ-

৯. a+b+c=2 এবং ‍ab+bc+ac হলে (a+b)^2+(b+c)^2+(c+a)^2 এর মান কত? উত্তরঃ 6

১০. একটি শ্রেণীর প্রতি বেঞ্চে ৪ জন করে ছাত্র বসালে ৩  বেঞ্চ খালি থাকে । আবার প্রতি বেঞ্চে ৩ জন করে বসালে ৬ জন ছাত্রকে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়।  ঐ  শ্রেণীর ছাত্র সংখ্যা কত?

উত্তরঃ ৬০ জন

সমাধান:

ধরি, বেঞ্চের সংখ্যা = x টি

প্রশ্নমতে, (x-3)4 = 3x+6

=>  4x-12 = 3x+6

=>  4x-3x = 6+12

=>      x = 18

ঐ শ্রেণির ছাত্র সংখ্যা = 3x+6 = 3*18+6 = 60 জন

১১. সংজ্ঞা লিখুন।

ক. অতিভুজ= সমকোণী ত্রিভুজের সমকোণের বিপরীত বাহুকে বলা হয় অতিভুজ। অতিভুজ সমকোণী ত্রিভুজের বৃহত্তম বাহু। এটির বর্গ অন্য দুটি বাহুর বর্গের সমষ্টির সমান, যেটি পিথাগোরাসের উপপাদ্য নামে পরিচিত।

খ. রম্বস= একটি সরলরেখা,অপর একটি সরলরেখার ওপর দন্ডায়মান হলে তাদের উৎপন্ন সন্নিহিত কোণের মান ৯০° হলে প্রথমোক্ত রেখাকে দ্বিতীয় রেখাটির ওপর লম্ব বলা হয়।

গ. সামান্তরিক= যে চতুর্ভূজের বিপরীত বাহুগুলো পরস্পর সমান্তরাল তাকে সামান্তরিক বলে। উল্লেখ্য যে, চতুর্ভূজের বিপরীত বাহুগুলো সমান্তরাল হলে বিপরীত বাহুগুলো সমানও হয়ে যায়। তাই আমরা বলে থাকি সামান্তরিকের বিপরীত বাহুগুলো সমান ও সমান্তরাল।

ঘ. আয়তক্ষেত্র= যে চতুর্ভুজের বিপরীত বাহু সমান ও সমান্তরাল এবং প্রত্যেকটি কোণ সমকোণ তাকে আয়তক্ষেত্র বলে ।

ঙ. সমকোণী ত্রিভুজ= যে ত্রিভুজের একটি কোণ সমকোণ 90 ডিগ্রী এবং অন্য দুটি কোণের সমষ্টি এক সমকোণ বা 90 ডিগ্রি হলে তাকে সমকোণী ত্রিভুজ বলে।

সাধারণ জ্ঞান অংশ সমাধানঃ-   

১২. ঐতিহাসিক ছয় দফার দফাগুলো কি কি?

উত্তরঃ  ছয় দফা আন্দোলন  বাংলাদেশের ইতিহাসের একটি গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। ১৯৬৬ সালে ৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি লাহোরে অনুষ্ঠিত বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর এক সম্মেলনে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শেখ মুজিবুর রহমান পূর্ব পাকিস্তানের স্বায়ত্তশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ৬ দফা দাবি পেশ করেন।

ছয় দফা দাবি-এর দাবিগুলো নিম্নরূপ:

প্রথম দফা : সরকারের বৈশিষ্ট হবে Federal বা যৌথরাষ্ট্রীয় ও সংসদীয় পদ্ধতির; তাতে যৌথরাষ্ট্রের অঙ্গরাজ্যগুলো থেকে কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাপক সভার নির্বাচন হবে প্রত্যক্ষ এবং সার্বজনীন প্রাপ্তবয়স্ক ভোটাধিকারের ভিত্তিতে। কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাপক সভার প্রতিনিধি নির্বাচন জনসংখ্যারভিত্তিতে হবে।

দ্বিতীয় দফা : কেন্দ্রীয় সরকারের দায়িত্ব থাকবে কেবল প্রতিরক্ষা ও বৈদেশিক বিষয় এবং তৃতীয় দফায় ব্যবস্থিত শর্তসাপেক্ষ বিষয়।

তৃতীয় দফা : পুর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানের জন্য দুটি পৃথক মুদ্রা-ব্যবস্থা চালু করতে হবে, যা পারস্পরিকভাবে কিংবা অবাধে উভয় অঞ্চলে বিনিময় করা চলবে। অথবা এর বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে একটি মুদ্রা-ব্যবস্থা চালু থাকতে পারে এই শর্তে যে, একটি কেন্দ্রীয় সংরক্ষণ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে হবে, যার অধীনে দুই অঞ্চলে দুটি রিজার্ভ ব্যাংক থাকবে। তাতে এমন বিধান থাকতে হবে যেন এক অঞ্চল থেকে অন্য অঞ্চলে সম্পদ হস্তান্তর কিংবা মূলধন পাচার হতে না পারে।

চতুর্থ দফা : রাজস্ব ধার্য ও আদায়ের ক্ষমতা থাকবে অঙ্গরাজ্যগুলোর হাতে। প্রতিরক্ষা ও বৈদেশিক বিষয়ের ব্যয় নির্বাহের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে প্রয়োজনীয় রাজস্বের যোগান দেয়া হবে। সংবিধানে নির্দেশিত বিধানের বলে রাজস্বের এই নির্ধারিত অংশ স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে জমা হয়ে যাবে। এহেন সাংবিধানিক বিধানে এমন নিশ্চয়তা থাকবে যে, কেন্দ্রীয় সরকারের রাজস্বের প্রয়োজন মেটানোর ব্যাপারটি এমন একটি লক্ষ্যের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ হতে হবে যেন রাজস্বনীতির উপর নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা নিশ্চিতভাবে অঙ্গরাজ্যগুলোর হাতে থাকে।

পঞ্চম দফা : যৌথরাষ্ট্রের প্রতিটি অঙ্গরাজ্য যে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করবে, সেই অঙ্গরাজ্যের সরকার যাতে স্বীয় নিয়ণ্ত্রনাধীনে তার পৃথক হিসাব রাখতে পারে, সংবিধানে সেরূপ বিধান থাকতে হবে। কেন্দ্রীয় সরকারের যে পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রার প্রয়োজন হবে, সংবিধান নির্দেশিত বিধি অনুযায়ী নির্ধারিত অনুপাতের ভিত্তিতে অঙ্গরাজ্যগুলো থেকে তা আদায় করা হবে। সংবিধান নির্দেশিত বিধানানুযায়ী দেশের বৈদেশিক নীতির কাঠামোর মধ্যে, যার দায়িত্ব থাকবে কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে, বৈদেশিক বাণিজ্য ও বৈদেশিক সাহায্য সম্পর্কে চুক্তি সম্পাদনের ক্ষমতা আঞ্চলিক বা প্রাদেশিক সরকারগুলোর হাতে থাকবে।

ষষ্ঠ দফা : ফলপ্রসূভাবে জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষার কাজে সাহায্যের জন্য অঙ্গরাজ্যগুলোকে মিলিশিয়া বা আধা-সামরিক বাহিনী গঠনের ক্ষমতা দিতে হবে।

১৩. নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর দিন।

ক. ”যতকাল রবে পদ্মা যমুনা গৌরী মেঘনা বহমান ততদিন রবে কীর্তি তোমার শেখ মুজিবুর রহমান।” উক্তিটি কার?

উত্তরঃ কবি অন্নদাশঙ্কর রায় (১৯০৪-২০০২)

খ. একুশে ফেব্রুয়ারি কবে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করে?  উত্তরঃ ১৯৯৯ খ্রিষ্টাব্দের ১৭ নভেম্বর

গ. বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে বীরঙ্গনা উপাধি প্রাপ্ত হন কতজন নারী? উত্তরঃ ৩৩৯ জন

ঘ. জীবন থেকে নেয়া চলচ্চিত্রের পরিচালক কে ছিলেন? উত্তরঃ জহির রায়হান

ঙ. বাংলাদেশের সংবিধানের প্রথম সংশোধনী এর উদ্দেশ্য কি ছিল? উত্তরঃ  ৯৩ হাজার যুদ্ধবন্দীর বিচার অনুষ্ঠান (১৯৭৩ সালে)

আরো পড়ুনঃ-

Download From Google Drive

Download

Download From Yandex

Download

👀 প্রয়োজনীয় মূর্হুতে 🔍খুঁজে পেতে শেয়ার করে রাখুন.! আপনার প্রিয় মানুষটিকে “send as message”এর মাধ্যমে শেয়ার করুন।

হয়তো এই গুলো তার অনেক কাজে লাগবে এবং উপকারে আসবে।