Saturday, July 24, 2021
Homeবাংলা সাহিত্য ও ব্যাকরণআধুনিক যুগের বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস এবং অনুবাদ ও অনুষঙ্গ পিডিএফ ডাউনলোড

আধুনিক যুগের বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস এবং অনুবাদ ও অনুষঙ্গ পিডিএফ ডাউনলোড

 আধুনিক যুগের বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস এবং অনুবাদ ও অনুষঙ্গ

পিডিএফ ডাউনলোড

১) জয়দেবের “গীতগোবিন্দ” কাব্যটিকে “Pastoral Drama”(যাজকীয় নাটক) কে বলেছেন?

উত্তর – স্যার (ধর্মতত্ত্ববিদ) উইলিয়াম জোন্স বলেছেন।

২) জয়দেবের “গীতগোবিন্দ” কাব্যটিকে “গীতিনাট্য” (Lyric Drama) কে বলছেন?

উত্তর – ধর্মতত্ত্ববিদ গ্রোফেশর লাসেন বলেছেন।

৩) জয়দেবের “গীতগোবিন্দ” কাব্যকে “শিল্পসমৃদ্ধ যাত্রা” (Refined Yatra) বলে কে উল্লেখ করেছেন?

উত্তর – ফন শ্র্যেডার উল্লেখ করেছেন।

৪) জয়দেবের “গীতগোবিন্দ” কাব্যকে “সঙ্গীত ও নাটকের মধ্যবর্তী শিল্পরূপ” (Category between song and drama) বলে কারা উল্লেখ করেছেন?

উত্তর – প্রখ্যাত জার্মান প্রাচ্যতত্ত্ববিদ রিচার্ড ফন পিশেল ও লেবি-এনারা উল্লেখ করেছেন।

৫) জয়দেবের “গীতগোবিন্দ” কাব্যকে “Melodrama” কে বলতে চেয়েছেন?

উত্তর – প্রখ্যাত জার্মান প্রাচ্যতত্ত্ববিদ রিচার্ড ফন পিশেল বলতে চেয়েছেন।

৬) জয়দেবের ”গীতগোবিন্দ” কাব্যের ইংরেজি ভাষায় প্রথম অনুবাদ কে করেছিলেন?

উত্তর – স্যার (ধর্মতত্ত্ববিদ) উইলিয়াম জোন্স করেছিলেন।

৭) কে, কেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে “বাল্মীকি কোকিল” আখ্যা দিয়েছিলেন?

উত্তর – তৎকালীন কলকাতার এক বিশিষ্ট বিদ্বজ্জন রেভারেন্ড কেষ্ট বাড়ুজ্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রথম নাটক (গীতিনাট্য) “বাল্মীকি-প্রতিভা” (১৮৮১)-তে রবি ঠাকুরের গান ও অভিনয় দেখেশুনে তাঁকে “বাল্মীকি কোকিল” অ্যাখ্যা দিয়েছিলন।

৮) ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কোন্ উপন্যাসটি প্রথম হিন্দিতে অনূদিত (অনুবাদ) হয়?

উত্তর – “রাজর্ষি” (১৮৮৭/১২৯৩) [পত্রিকায় তৃতীয় ও গ্রন্থাকারে দ্বিতীয় প্রকাশিত] ইতিহাসশ্রয়ী বা ঐতিহাসিক উপন্যাসটি প্রথম হিন্দিতে অনূদিত (অনুবাদ) হয়।

৯) ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর কোন্ উপন্যাসটিকে “লিরিকের তোড়া” বলে উল্লেখ করেছেন?

উত্তর – তাঁর শেষ প্রকাশিত (রাজনৈতিক) উপন্যাস “চার অধ্যায়” (১৯৩৪/চৈত্র, ১৩৪০)-কে।

১০) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কোন্ উপন্যাসটি কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়কে বিশেষভাবে প্রভাবিত করেছিল?

উত্তর – “চোখের বালি” (৫ই, এপ্রিল ১৯০৩/১৩০৯) [পত্রিকায় চতুর্থ ও গ্রন্থাকারে তৃতীয় প্রকাশিত] নামক বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাসটি।

১১) “সবুজপত্রের সারথি রবীন্দ্রনাথ, গাণ্ডীবী সব্যসাচী প্রমথনাথ।” — মন্তব্যটি কে করেছেন?

উত্তর – মন্তব্যটি করেছেন — ড. ও সাহিত্য-সমালোচক সুকুমার সেন।

১২) গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “নবজীবন” পত্রিকায় প্রকাশিত একমাত্র গল্পটির নাম কী?

উত্তর – “রাজপথের কথা” (অগ্রহায়ণ, ১২৯১)।

১৩) ”বালক” পত্রিকায় প্রকাশিত গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের একমাত্র গল্পের নাম কী?

উত্তর – ”মুকুট” (বৈশাখ-জ্যৈষ্ঠ, ১২৯২)।

১৪) গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ”ইচ্ছাপূরণ” (ভাদ্র-কার্তিক, ১৩০২) গল্পটি কোন্ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?

উত্তর – ”সাধনা” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

১৫) গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “প্রদীপ” পত্রিকায় প্রকাশিত প্রথম গল্প কোনটি?

উত্তর – “সদর ও অন্দর” (আষাঢ়, ১৩০৭)।

১৬) গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “প্রদীপ” পত্রিকায় প্রকাশিত শেষ গল্প কোনটি?

উত্তর – “শুভদৃষ্টি” (আশ্বিন, ১৩০৭)।

১৭) গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “বঙ্গদর্শন” পত্রিকায় প্রকাশিত শেষ গল্প কোনটি?

উত্তর – “মাল্যদান” (চৈত্র, ১৩০৯)।

১৮) গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “প্রবাসী” পত্রিকায় প্রকাশিত শেষ গল্প কোনটি?

উত্তর – “বদনাম” (আষাঢ়, ১৩৪৮)।

১৯) নাট্যকার দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের কোন্ নাটকে “গোবিন্দ” চরিত্রটির উল্লেখ পাওয়া যায়?

উত্তর – “মেবার পতন” (২৭শে ডিসেম্বর, ১৯০৮) নামক ইতিহাসশ্রয়ী বা ঐতিহাসিক নাটকে।

২০) নাট্যকার দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের শেষ প্রকাশিত পৌরাণিক নাটক কোনটি?

উত্তর – “ভীষ্ম” (৮ই জানুয়ারি, ১৯১৪)।

২১) নাট্যকার দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের সবচেয়ে দীর্ঘতম নাটক কোনটি?

উত্তর – “সিংহল বিজয়” (১৩ই অক্টোবর, ১৯১৫) নামক ইতিহাসশ্রয়ী বা ঐতিহাসিক নাটক।

২২) নাট্যকার দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের মৃত্যুর পরে (মরণোত্তর) প্রকাশিত শেষ সামাজিক নাটক কোনটি? নাটকটির উপর কার, কোন্ নাটকের প্রভাব অত্যন্ত সুস্পষ্ট?

উত্তর – “বঙ্গনারী” (১০ই এপ্রিল, ১৯১৬)। নাটকটির উপর নাট্যগুরু গিরিশচন্দ্র ঘোষের “বলিদান” (১৯০৫) নামক সামাজিক নাটকের প্রভাব অত্যন্ত সুস্পষ্ট।

২৩) বাংলা সাহিত্যে উল্লেখযোগ্য দু’জন দ্বিজেন্দ্র জীবনীকারের নাম উল্লেখ করুন।

উত্তর – (ক) সাহিত্য-সমালোচনামূলক দেবকুমার রায়চৌধুরী (১৮৮৪-১৯২৯) এবং (খ) সাহিত্য -সমালোচনামূলক নবকৃষ্ণ ঘোষ (১৮৩৭-১৯১৮)।

২৪) “লেখার কথা”, “যে বই লিখতে চাই”, “আমার চোখে কপালকুণ্ডলা”, “আমি যদি আমার সমালোচক হতাম”, “ইতিহাস ও সাহিত্য”, “রবীন্দ্রনাথ ও বাংলার পল্লী” — এই প্রবন্ধ-সমালোচনামূলক গ্রন্থগুলি কার লেখা?

উত্তর – প্রাবন্ধিক তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা।

২৫) “ইতিহাস ও সাহিত্য” (প্রবন্ধ-সমালোচনামূলক গ্রন্থ) = ভারতীয় বাঙালি প্রাবন্ধিক ও সাহিত্য-সমালোচক তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়।

“ইতিহাস ও সাহিত্য” (প্রবন্ধ-সমালোচনামূলক গ্রন্থ) = ভারতীয় বাঙালি প্রাবন্ধিক ও সাহিত্য-সমালোচক অশীন দাশগুপ্ত। প্রকাশনা :- “আনন্দ পাবলিকেশন”, কলকাতা। তৃতীয় সংস্করণ (মুদ্রণ) :- ২০০৬ সাল।

 “ইতিহাস ও সাহিত্য” (প্রবন্ধ-সমালোচনামূলক গ্রন্থ) = বাংলাদেশী প্রাবন্ধিক ও সাহিত্য-সমালোচক মাহবুবুল হক।

২৬) বিদ্যাপতিকে “অতিলুব্ধ নগর যাচক” বলে কে মন্তব্য করেছেন?

উত্তর – বিদ্যাপতির সমকালীন প্রতিদ্বন্দ্বী কেশব মিশ্র মন্তব্য করেছেন।

২৭) নাট্যকার দীনবন্ধু মিত্রের একটি কবিতা “বঙ্গদর্শন” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। কবিতাটির নাম কী?

উত্তর – “প্রভাত”।

২৮) কবি (সাহিত্যসম্রাট) বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের লেখা প্রথম কবিতাটির নাম কী? সেটি কবে, কোথা থেকে প্রকাশিত হয়?

উত্তর – “পদ্য”। সেটি ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ১৮৫২ খ্রিস্টাব্দে বাঙালি তথা ভারতীয় কবি-সাহিত্যিক ও সাংবাদিক ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্ত সম্পাদিত “সংবাদ প্রভাকর” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

২৯) কবি (সাহিত্যসম্রাট) বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের লেখা দ্বিতীয় কবিতাটির নাম কী? সেটি কবে, কোথা থেকে প্রকাশিত হয়?

উত্তর – “বিরলে বাস”। সেটি ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ১৮৫২ খ্রিস্টাব্দে ইংরেজ সাংবাদিক ও ঐতিহাসিক জন ক্লার্ক মার্শম্যান সম্পাদিত “সমাচার দর্পণ” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

৩০) সাহিত্যসম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের “দুর্গেশনন্দিনী” (মার্চ, ১৮৬৫) উপন্যাসে কোন্ সময়ের ঘটনা বর্ণিত হয়েছে?

উত্তর – ৯৯৭ বঙ্গাব্দের ঘটনা বর্ণিত হয়েছে।

৩১) বাংলা সাহিত্যে “বিজ্ঞানাচার্য” কার উপাধি?

উত্তর – আচার্য (বাঙালি পদার্থবিদ, উদ্ভিদবিদ ও জীববিজ্ঞানী) জগদীশ চন্দ্র বসুর উপাধি।

৩২) কবি শিবনাথ শাস্ত্রীর প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের নাম কী?

উত্তর – “নির্বাসিতের বিলাপ”।

৩৩) গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “গল্পগুচ্ছ” নামক গল্প-সংকলন গ্রন্থের প্রকাশকাল কত?

উত্তর – ১৯২৬ খ্রিস্টাব্দ (শ্রাবণ, ১৩৩৩ বঙ্গাব্দ)।

 

৩৪) কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় কোন্ ছদ্মনামে সবচেয়ে বেশি সাহিত্য রচনা করেন? সেই ছদ্মনামে লেখা তাঁর একটি গ্রন্থের নাম বলুন।

উত্তর – “অনিলা দেবী” ছদ্মনামে। [এই ‘অনিলা দেবী’ হলেন তাঁর বড়দিদি।]

এই ছদ্মনামে লেখা তাঁর একটি গ্রন্থের নাম :- “নারীর মূল্য” (১৯২৪) প্রবন্ধগ্রন্থের অন্তর্গত “নারীর মূল্য” প্রবন্ধ। [এই প্রবন্ধটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৩২০ ‌বঙ্গাব্দের বৈশাখ-আষাঢ় এবং ভাদ্র-আশ্বিন সংখ্যা সম্পাদক ফণীন্দ্রনাথ পাল সম্পাদিত মাসিক “যমুনা” পত্রিকায়।]

৩৫) কথাসাহিত্যিক রাজশেখর বসু ছাড়া “শ্রীপরশুরাম” ছদ্মনামে আর কোন্ সাহিত্যিক গ্রন্থ রচনা করেন? গ্রন্থটির নাম কী? গ্রন্থটি কবে, কোন্ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?

উত্তর – কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় গ্রন্থ রচনা করেন।

গ্রন্থটির নাম :- ”নূতন প্রোগ্রাম” নামক একটি নিবন্ধ।

নিবন্ধটি আশ্বিন, ১৩৩৬ বঙ্গাব্দে ”বেণু” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

৩৬)”St.C.Lara” (“এসটি.সি.লারা”) ইংরেজি ছদ্মনামে প্রথম জীবনের সাহিত্য রচনা কে করতেন?

উত্তর – কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়।

৩৭) কথাসাহিত্যিক শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়কে “মহিমময় সাহিত্যিক” বলে কে আখ্যা দেন?

উত্তর – চার্লস ফ্রিয়ার এন্ড্রুজ (Charles Freer Andrews) বা সি. এফ. এন্ড্রুজ (C. F. Andrews)।

৩৮) “যে বই লিখতে চাই” — এই প্রবন্ধ-সমালোচনামূলক গ্রন্থটির রচয়িতা কে?

উত্তর – তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়।

৩৯) কথাসাহিত্যিক বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়, ওরফে বনফুলের প্রথম সামাজিক উপন্যাস কোনটি?

উত্তর – “বৈতরণী তীরে” (১৯৩৬)। [বনফুলের এই উপন্যাসটি সামাজিক উপন্যাস হিসেবে খুব বেশি সার্থক হতে পারেনি।]

৪০) কথাসাহিত্যিক বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়, ওরফে বনফুলের প্রথম সার্থক সামাজিক উপন্যাস কোনটি?

উত্তর – “কিছুক্ষণ” (১৯৩৭/১৩৪৫)।

৪১) কবি বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়, ওরফে বনফুলের শেষ প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের নাম কী?

উত্তর – “সুরসপ্তক” (১৯৭০)।

৪২) কথাসাহিত্যিক বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়, ওরফে বনফুলের আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থের নাম কী?

উত্তর – “পশ্চাৎপট” (৭ই জুলাই, ১৯৭৮)।

৪৩) ডঃ ও সাহিত্য-সমালোচক সুকুমার সেন কথাসাহিত্যিক বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়, ওরফে বনফুলের ছোট গল্পগুলিকে ইংরেজি সাহিত্যের কোন্ গল্পগুলির সঙ্গে তুলনা করেছেন?

উত্তর – “Five minute short story” গল্পগুলির সঙ্গে তুলনা করেছেন।

৪৪) কথাসাহিত্যিক বলাইচাঁদ মুখোপাধ্যায়, ওরফে বনফুলের অণুগল্পগুলিকে সাহিত্য-সমালোচক বুদ্ধদেব বসু কি বলে উল্লেখ করেছেন?

উত্তর – “এক চুমুক” বলে উল্লেখ করেছেন।

৪৫) কবি জীবনানন্দ দাশকে “নির্জনতার কবি” বলে কে অভিহিত করেন?

উত্তর – সাহিত্য-সমালোচক বুদ্ধদেব বসু অভিহিত করেন।

৪৬) প্রাবন্ধিক সৈয়দ মুজতবা আলীর ভাষার সঙ্গে পাশ্চাত্য কোন্ সাহিত্যিকের ভাষার তুলনা করা হয়?

উত্তর – ইংরেজি রোমান্টিক যুগের একজন অন্যতম প্রাবন্ধিক স্যার চার্লস ল্যাম্বের ভাষার সঙ্গে তুলনা করা হয়।

৪৭) কথাসাহিত্যিক সৈয়দ মুজতবা আলীর দ্বিতীয় প্রকাশিত উপন্যাস ”শবনম” (১৯৬০/১৩৬৭) কোন্ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?

উত্তর – “দেশ” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

৪৮) সৈয়দ মুজতবা আলীর প্রিয় বিষয় কী ছিল?

উত্তর – তুলনামূলক ধর্মতত্ত্ব।

৪৯) “নতুন পথপ্রদর্শক হিসাবে মুজতবাই শান্তিনিকেতনের প্রাক্তন ছাত্রদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ গদ্যলেখক।” — গদ্যলেখক (প্রাবন্ধিক) সৈয়দ মুজতবা আলী সম্পর্কে এরূপ মন্তব্য কে করেন?

উত্তর – গদ্যলেখক (প্রাবন্ধিক) সৈয়দ মুজতবা আলী সম্পর্কে এরূপ মন্তব্য করেন — সাহিত্য-সমালোচক প্রমথনাথ বিশী।

৫০) হিন্দি ও উর্দু ভাষার একজন অন্যতম সফল সাহিত্যিক মুন্সী প্রেমচন্দের প্রকৃত নাম কী?

উত্তর – ‘ধনপত রায় শ্রীবাস্তব’।

৫১) উর্দু ভাষায় তাঁর গল্প রচনা করার ক্ষেত্রে মুন্সী প্রেমচাঁদ কোন্ ছদ্মনামটি ব্যবহার করতেন?

উত্তর – “নবাব রায়” ছদ্মনামটি ব্যবহার করতেন।

৫২) হিন্দি সাহিত্যে “জীবনবাদী সাহিত্যিক” কাকে বলা হয়?

উত্তর – মুন্সী প্রেমচন্দ বা মুন্সী প্রেমচাঁদকে বলা হয়।

৫৩) হিন্দি ও উর্দু ভাষার একজন অন্যতম সফল সাহিত্যিক মুন্সী প্রেমচাঁদ প্রায় ক’টি গল্প লিখেছেন?

উত্তর – প্রায় তিনশো (৩০০)-টি গল্প লিখেছেন।

৫৪) হিন্দি গল্পকার মুন্সী প্রেমচাঁদ রচিত (লিখিত) প্রথম হিন্দি গল্প কোনটি? সেটি কবে পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?

উত্তর – হিন্দি গল্পকার মুন্সী প্রেমচাঁদ রচিত (লিখিত) প্রথম হিন্দি গল্প হল — ”সৌত”। গল্পটি ১৯১৫ খ্রিস্টাব্দে পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

৫৫) মার্কিন (আমেরিকান) কবি-সাহিত্যিক ল্যাংস্টন হিউজ তাঁর যৌবনকালে কাদের কবিতা পড়ে গভীরভাবে প্রভাবিত হন?

উত্তর – আমেরিকান (মার্কিন) কবি কার্ল স্যান্ডবার্গ [Carl Sandburg] (১৮৭৮-১৯৬৭) এবং ওয়াল্ট হুইটম্যানে [Walt Whitman] (১৮১৯-১৮৯২)-এর কবিতা পড়ে গভীরভাবে প্রভাবিত হন।

৫৬) মার্কিন (আমেরিকান) কবি ল্যাংস্টন হিউজের প্রথম প্রকাশিত কবিতা কোনটি? সেটি কবে, কোন্ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?

উত্তর – “The Negro Speaks of Riverse“। সেটি ১৯২০ খ্রিস্টাব্দে “The Crisis Magazine” [“দ্য ক্রাইসিস ম্যাগাজিন”]-এ প্রকাশিত হয়।

৫৭) মার্কিন (আমেরিকান) কবি ল্যাংস্টন হিউজের প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের (কবিতার বই) নাম কী?

উত্তর – “The Weary Blues” (১৯২৬)।

৫৮) মার্কিন (আমেরিকান) ঔপন্যাসিক ল্যাংস্টন হিউজের প্রথম প্রকাশিত উপন্যাস কোনটি?

উত্তর – “Not Without Laughter” (১৯৩০)।

৫৯) মার্কিন (আমেরিকান) ছোটগল্পকার ল্যাংস্টন হিউজের প্রথম প্রকাশিত ছোটগল্প-সংকলন গ্রন্থের নাম কী?

উত্তর – “The Ways of While Folks” (১৯৩৪)।

৬০) মার্কিন (আমেরিকান) সাহিত্যিক ল্যাংস্টন হিউজের আত্মজীবনীমূলক (আত্মজৈবনিক) গ্রন্থ দুটির নাম কী?

উত্তর – (ক) “The Big Sea” (১৯৪০) [নন ফিকশন গ্রন্থ/নন ফিকশন বই] এবং (খ) “I Wonder as I Wander” (১৯৫৬) [নন ফিকশন গ্রন্থ/নন ফিকশন বই]।

৬১) “Dear Lovely Death” (১৯৩১) [“ডিয়ার লাভলি ডেথ”] — কাব্যগ্রন্থটির রচয়িতা কে?

উত্তর – মার্কিন (আমেরিকান) কবি ল্যাংস্টন হিউজ।

৬২) “Little Ham” (১৯৩৬) [“লিটল হ্যাম”] — নাটকটি কে রচনা করেন?

উত্তর – মার্কিন (আমেরিকান) নাট্যকার ল্যাংস্টন হিউজ রচনা করেন।

৬৩) কবি অমিয় চক্রবর্তীর “চেতন স্যাকরা” কবিতাটি তাঁর কোন্ কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত?

উত্তর – “এক মুঠো” (১৯৩৯) কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত।

৬৪) কবি অমিয় চক্রবর্তীর “মাটি” কবিতাটি তাঁর কোন্ কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত?

উত্তর – “পারাপার” (১৯৫৩) কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত।

৬৫) কবি অমিয় চক্রবর্তীকে তাঁর “প্রিয়তম কবি” বলে কে উল্লেখ করেছেন?

উত্তর – বিশিষ্ট সাহিত্য-সমালোচক, গবেষক ও অধ্যাপক আবু সয়ীদ আইয়ুব উল্লেখ করেছেন।

৬৬) কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর “আদর্শ হিন্দু হোটেল” (১৯৪০) উপন্যাসটি কাকে উৎসর্গ করেন?

উত্তর – ছোট ভাই নুটুবিহারী বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

৬৭) কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের “বিপিনের সংসার” (১৯৪১) উপন্যাসটি কোন্ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?

উত্তর – “অলকা” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

৬৮) “মতি বাগদী” — কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের কোন্ উপন্যাসে এই চরিত্রটির উল্লেখ পাওয়া যায়? উত্তর – “বিপিনের সংসার” (১৯৪১) উপন্যাসে।

৬৯) কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর “কেদার রাজা” (১৯৪৫) উপন্যাসটি কাকে উৎসর্গ করেন?

উত্তর – সাহিত্যিক নীরদরঞ্জন দাশগুপ্তকে উৎসর্গ করেন।

৭০) কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের “অথৈ জল” (১৯৪৭) উপন্যাসটি কোন্ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?

উত্তর – “প্রভাতী” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

৭১) কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের মরণোত্তর “রবীন্দ্র পুরস্কার” (১৯৫১) প্রাপ্ত “ইছামতি” (১৯৫০) উপন্যাসটি কোন্ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?

উত্তর – “অভ্যুদয়” পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

৭২) কথাসাহিত্যিক লীলা মজুমদারের প্রথম প্রকাশিত গল্পগ্রন্থ কোনটি?

উত্তর – ”বদ্যিনাথের বড়ি” (১৯৪০)।

৭৩) ”চার বিচারকের দরবার” (১৯৬০) — কথাসাহিত্যিক লীলা মজুমদার রচিত এই গ্রন্থটি কার, কোন্ গ্রন্থের বাংলা অনুবাদ (বঙ্গানুবাদ)?

উত্তর – ইংরেজি (ব্রিটিশ) লেখক রিচার্ড হোরাটিও এডগার ওয়ালেস [ইংরেজি: Richard Horatio Edgar Wallace : ১৮৭৫১৯৩২]-এর “The Council of Justice” (“দ্য কাউন্সিল অফ জাস্টিস : ১৯০৮) থ্রিলার উপন্যাসের বাংলা অনুবাদ (বঙ্গানুবাদ)।

৭৪) কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের তৃতীয় প্রকাশিত “চিরকুট” (১৯৫০) কাব্যগ্রন্থের কবিতাগুলি কোন্ সময়ের মধ্যে লিখিত?

উত্তর – ১৯৪১-১৯৪৬ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে লিখিত।

৭৫) কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের চতুর্থ প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ “ফুল ফুটুক” (১৯৫৭)-এর কবিতাগুলি কোন্ সময়ের মধ্যে লিখিত?

উত্তর – ১৯৫১-১৯৫৭ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে লিখিত।

৭৬) কবি হিসেবে খ্যাত হয়েও সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের কোন্ উপন্যাসটি তাঁর উপন্যাসগুলির মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হয়েছে?

উত্তর – ঔপন্যাসিক সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের প্রথম প্রকাশিত উপন্যাস “হাংরাস” (১৯৭৩)-এটি তাঁর উপন্যাসগুলির মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হয়েছে।

৭৭) “একটু পা চালিয়ে ভাই” (১৯৭৯) — কাব্যগ্রন্থটির রচয়িতা কে?

উত্তর – কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়।

৭৮) কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের শেষ প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের নাম কী?

উত্তর – “ছড়ানো মাটি” (২০০১)।

[এই কাব্যগ্রন্থটি কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যু (৮ই জুলাই, ২০০৩)-র ২ বছর আগে প্রকাশিত হয়।]

৭৯) “সাহিত্যের দেশবিদেশ” (১৯৬২) — প্রবন্ধগ্রন্থটি কার লেখা?

উত্তর – প্রাবন্ধিক বিষ্ণু দে’র লেখা।

৮০) “রবীন্দ্রনাথ ও শিল্পসাহিত্যে আধুনিকতার সমস্যা” (১৯৬৬) — প্রবন্ধগ্রন্থটির রচয়িতা কে?

উত্তর – প্রাবন্ধিক বিষ্ণু দে।

৮১) নাট্যকার জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুরের শেষ প্রকাশিত মৌলিক নাটক অথবা ইতিহাসশ্রয়ী বা ঐতিহাসিক নাটক কোনটি?

উত্তর – “স্বপ্নময়ী” (১৮৮২)।

৮২) কোন্ কাব্যগ্রন্থ থেকে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নিজের রচনাকে স্বীকৃতি দেন এবং নিজের বক্তব্যকে প্রকাশ করতে শুরু করেন?

উত্তর – “সন্ধ‍্যাসঙ্গীত” (১৮৮২/১২৮৮) কাব্যগ্রন্থ থেকে।

৮৩) সাহিত্য-সমালোচক প্রমথ চৌধুরী (বীরবল) সম্পাদিত মাসিক “সবুজপত্র” (১৯১৪/১৩২১) পত্রিকার প্রথম প্ৰতিপক্ষ পত্রিকাটির নাম কী?

উত্তর – সাহিত্য-সমালোচক চিত্তরঞ্জন দাশ সম্পাদিত মাসিক “নারায়ণ” (১৯১৪/বৈশাখ, ১৩২১) পত্রিকা।

৮৪) “তিনি ‘লেখকদের লেখক’ এবং ভবিষ্যতের বাঙালি লেখকদের তিনি হবে অন্যতম শিক্ষক।” — সাহিত্য-সমালোচক বুদ্ধদেব বসু কার সম্পর্কে, কোন্ গ্রন্থে এমন মন্তব্য করেছেন?

উত্তর – সাহিত্য-সমালোচক বুদ্ধদেব বসু সাহিত্যিক প্রমথ চৌধুরী (বীরবল) সম্পর্কে তাঁর “কালের পুতুল” (১৯৪৬) প্রবন্ধগ্রন্থে এমন মন্তব্য করেছেন।

৮৫) “.প্রমথবাবুর সম্পাদিত সবুজপত্র প্রকাশিত হইয়া শিক্ষিত বাঙ্গালীর সাহিত্য ও সমাজ চিন্তায় মর্মান্তিক ও গতানুগতিকতার উপর প্রাণান্তিক আঘাত হানিল।” — কে এরূপ মন্তব্য করেছেন?

উত্তর – সাহিত্য-সমালোচক সুকুমার রায় এরূপ মন্তব্য করেছেন।

(সূত্র :- “বাঙ্গালা সাহিত্যের ইতিহাস”, ড. ও সাহিত্য-সমালোচক সুকুমার সেন, ১৯৭৬; ২৪৮ পৃষ্ঠা।)

৮৬) “বীরবলের ভাষার তুলনায় হুতোম বা বিবেকানন্দের বাংলা চলিত রীতি অনেক বেশি জীবনের নিকটবর্তী।” — কে এমন বলেছেন?

উত্তর – ড. ও সাহিত্য-সমালোচক অসিতকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় এরূপ বলেছেন।

৮৭) সাহিত্যসম্রাট বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের “বঙ্গদর্শন” পত্রিকায় (চতুর্থ বাংলা) প্রকাশিত উপন্যাস “বিষবৃক্ষ” (১৮৭৩)-এর সঙ্গে গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কোন্ গল্পের মিল রয়েছে?

উত্তর – জ্যৈষ্ঠ, ১৩০০ বঙ্গাব্দে “সাধনা” পত্রিকায় প্রকাশিত গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “মধ্যবর্তিনী” গল্পের মিল রয়েছে।

৮৮) বাংলা সাহিত্যে সনেটে ইতালীয় পেত্রার্কীয় রীতির সঙ্গে ফরাসী ধাঁচের সংমিশ্রণ কে ঘটিয়েছেন?

উত্তর – কবি-প্রাবন্ধিক প্রমথ চৌধুরী (বীরবল)।

৮৯) গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কোন্ গল্পকে “উপন্যাসধর্মী ছোটগল্প” বলা হয়?

উত্তর – বৈশাখ-অগ্রহায়ণ, ১৩০৮ বঙ্গাব্দে (১৯০১ খ্রিস্টাব্দ) “ভারতী” পত্রিকায় প্রকাশিত গল্পকার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের “নষ্টনীড়” গল্পকে “উপন্যাসধর্মী ছোটগল্প” বলা হয়।

৯০) ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কোন্ উপন্যাসটিকে “ছোটগল্পধর্মী উপন্যাস” বলা হয়?

উত্তর – অগ্রহায়ণ, ১৩২১-ফাল্গুন, ১৩২১ বঙ্গাব্দ পর্যন্ত সাহিত্য-সমালোচক শ্রীপ্রমথ চৌধুরী (বীরবল) সম্পাদিত “সবুজপত্র” পত্রিকায় প্রকাশিত ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সামাজিক ও মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাস “চতুরঙ্গ” (১৩২৩/১৯১৬)-কে “ছোটগল্পধর্মী উপন্যাস” বলা হয়।

৯১) সাধু ভাষায় লিখিত ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সর্বশেষ উপন্যাস কোনটি?

উত্তর – অগ্রহায়ণ, ১৩২১-ফাল্গুন, ১৩২১ বঙ্গাব্দ পর্যন্ত সাহিত্য-সমালোচক শ্রীপ্রমথ চৌধুরী (বীরবল) সম্পাদিত “সবুজপত্র” পত্রিকায় প্রকাশিত সামাজিক ও মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাস “চতুরঙ্গ” (১৩২৩/১৯১৬) হল

ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সাধু ভাষায় লিখিত সর্বশেষ উপন্যাস।

৯২) চলিত ভাষায় লিখিত ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সর্বশেষ উপন্যাস কোনটি?

উত্তর – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শেষ প্রকাশিত (রাজনৈতিক) উপন্যাস “চার অধ্যায়” (১৯৩৪/চৈত্র, ১৩৪০) হল ঔপন্যাসিক রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সর্বশেষ চলিত ভাষায় লিখিত উপন্যাস।

৯৩) “জীবনানন্দ দাশের চিত্ররূপময় কবিতাটি আমাকে আনন্দ দিয়েছে।” — কবি জীবনানন্দ দাশের কোন্ কবিতা সম্পর্কে কে একথা বলেছেন? তিনি এই কবিতাটি পাঠ করে কবে ও কাকে লেখা একটি চিঠির মাধ্যমে একথা জানিয়েছেন?

উত্তর – কবি জীবনানন্দ দাশের দ্বিতীয় প্রকাশিত ও তৃতীয় রচিত কাব্যগ্রন্থ “ধূসর পান্ডুলিপি” (১৯৩৬/১৩৪৩)-এর অন্তর্গত “মৃত্যুর আগে” কবিতা সম্পর্কে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একথা বলেছেন।

¤কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এই “মৃত্যুর আগে” কবিতাটি পাঠ করে আশ্বিন, ১৩৪২ বঙ্গাব্দে কবি-সাহিত্যিক ও সমালোচক বুদ্ধদেব বসুকে লেখা একটি চিঠির মাধ্যমে একথা জানিয়েছেন।

৯৪) সাহিত্যিক সৈয়দ মুজতবা আলীর ডাকনাম কী ছিল?

উত্তর – ‘সিতারা’ (যার অর্থ ‘নক্ষত্র’), সংক্ষেপে ‘সীতু’।

৯৫) মাত্র ১২ বছর বয়সে অঙ্ক পরীক্ষা দিতে গিয়ে পরীক্ষার খাতায় তিনি একটি কবিতা লিখে আসেন। কবিতাটি হল :-

              “হে হরি হে দয়াময়

                       কিছু মার্ক দিয়ো আমায়

               তোমায় স্মরণাগত,

                       নাহি সতত

               শুধু এই পরীক্ষার সময়।”

প্রশ্নটি হল :- তিনি কে?

উত্তর – তিনি হলেন :- কবি-সাহিত্যিক প্রমথনাথ বিশী।

৯৬) মাত্র ১৩ বছর বয়সে বাড়ির পুরোনো সিলিং পাখা নিয়ে তিনি কবিতা লেখেন। কবিতাটি তাঁর ১৯ বছর বয়সে তিন (৩)-টি ছোট পত্রিকায় একই সঙ্গে ছাপা হয়। পত্রিকাগুলি হল — (১) “সীমান্ত সাহিত্য” (simanta sahittya) পত্রিকা, (২) “পদক্ষেপ” পত্রিকা এবং (৩) “হোমশিখা” পত্রিকা।

প্রশ্নটি হল :- তিনি কে?

উত্তর – তিনি হলেন :- কবি জয় গোস্বামী।

৯৭) “উত্তরে থাকা মৌন” (১৯৭৭) — কাব্যগ্রন্থটির রচয়িতা কে? এই কাব্যগ্রন্থটিতে কয়টি কবিতা রয়েছে?

উত্তর – কবি বিষ্ণু দে।

এই অষ্টাদশ প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থটিতে মোট ৪৩টি কবিতা রয়েছে।

৯৮) বিষ্ণু দে কোন্ গ্রন্থের জন্য “সোভিয়েত ল্যান্ড নেহরু পুরস্কার” [“Soviet Land Nehru Award” (সোভিয়েট ল্যান্ড নেহরু অ্যাওয়ার্ড”)] পান?

উত্তর – “রুশতী পঞ্চশতী” কাব্য-সংকলন গ্রন্থের জন্য।

৯৯) কথাসাহিত্যিক সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের ত্রয়ী উপন্যাসগুলির নাম বলুন।

উত্তর – (ক) “সেই সময়” (১ম খণ্ড : ১৯৮১ ও ২য় খণ্ড :  ১৯৮২), (খ) “পূর্ব-পশ্চিম” (১ম খণ্ড : ১৯৮৮ ও ২য় খণ্ড :  ১৯৮৯) এবং (গ) “প্রথম আলো” (১ম খণ্ড : ১৯৯৬ ও ২য় খণ্ড :  ১৯৯৭)।

১০০) কথাসাহিত্যিক প্রফুল্ল রায়ের ত্রয়ী উপন্যাসগুলির নাম উল্লেখ করুন।

উত্তর – (ক) “কেয়াপাতার নৌকো” (২০০৩), (খ) “শতধারায় বয়ে যায়” (২০০৮) এবং (গ) “উত্তাল সময়ের ইতিকথা” (২০১৪)।

 

বিশেষ দ্রষ্টব্য :-এই ১০০টি প্রশ্নের মধ্যে মোট ৭টি (প্রথম ৬টি ও ২৬নং) প্রশ্ন মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের ইতিহাস থেকে রয়েছে। এছাড়া, মোট ৭টি (৩২, ৬৩, ৬৪, ৬৫, ৯৫, ৯৬ ও ১০০নং) প্রশ্ন S.S.C (S.L.S.T) সিলেবাসের বাইরে থেকে রয়েছে। কিন্তু আপনাদের এই প্রশ্নগুলো সব জেনে রাখতে হবে। সেজন্যই এই প্রশ্নগুলো S.S.C (S.L.S.T) সিলেবাস বহির্ভুক্ত হলেও সিলেবাসে থাকা অন্য প্রশ্নের সঙ্গে আমরা এখানে যুক্ত করেছি।

                            ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

 
 Download From Google Drive 
 
Download From Yandex
 
 
 

প্রয়োজনীয় মূর্হুতে খুঁজে পেতে শেয়ার করে রাখুন.! আপনার প্রিয় মানুষটিকে “send as message”এর মাধ্যমে শেয়ার করুন। হয়তো এই গুলো তার অনেক কাজে লাগবে এবং উপকারে আসবে।

এরকম আরো গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট পড়তে নিচের দেওয়া লিংকে 

ক্লিক করুন
 
 
 
 
 
RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments

auto ads
error: Content is protected !!