সহজ টেকনিকে ১ থেকে ১১নং পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর মনে রাখার উপায়। পিডিএফ ডাউনলোড

0
3443

সহজ টেকনিকে ১ থেকে ১১নং পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর

মনে রাখার উপায়। পিডিএফ ডাউনলোড

 
 
মুক্তিযুদ্ধের ১১ সেক্টর কমান্ডার নাম মনে রাখার সহজ উপায়
১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ সমগ্র বাংলাদেশকে ১১টি সেক্টরে ভাগ করা হয়। সহজ টেকনিকে  ১ থেকে ১১নং পর্যন্ত সেক্টর মনে রাখার উপায়।
মুক্তিযুদ্ধের ১১টি সেক্টর নাম
 
মুক্তিযুদ্ধের ১১ সেক্টর কমান্ডার নাম মনে রাখার সহজ উপায়
ছন্দ :- জিয়ার খাস দশ বানুর ওজন শুন্যতা –
১. জিয়া – জিয়াউর রহমান (১ নং)
২. খা- খালেদ মোশারফ (২নং)
৩. স – কে এম শফিউল করিম (৩নং)
৪. দ – সি আর দত্ত (৪ নং)
৫. শ – মীর শওকত আলী (৫ নং)
৬. বা – উইং কমান্ডার বাশার ( ৬ নং)
৭. নুর – কাজী নুরুজ্জামান (৭নং)
৮. ও – ওসমান চৌধুরী (৮ নং)
৯. জন- মেজর জলিল। (৯ নং)
১০. শুন্য – শুন্য ( কোনো সেক্টর কমান্ডার ছিলনা) (১০নং)
১১. তা – কর্নেল তাহের (১১নং) ইনারা ছিলেন প্রধান।
ইনাদের সাথে কোনো সেক্টরে আরও ১ জন করে ছিলেন। নাম নিজ দায়িত্ব নিয়ে জেনে নিন।পাঠকদের মনে রাখার সুবিধার্থে প্রথমে সেক্টর কমান্ডার ও পরে সেক্টর ভিত্তিক জেলা গুলো তুলে ধরা হলো।
৭ জন বীর শ্রেষ্ঠ কে কোন সেক্টরে যুদ্ধ করেছেন মনে রাখার টেকনিক
ছন্দ :- আজ হাজারো মোম এর নূর জ্বলে ।
সেক্টর :- ১,৪,৭,১০,২,০,৮ (বাংলাদেশের আয়তন এক লক্ষ ৪৭ হাজার এর সাথে মিল রেখে উপরের সংখ্যাটিকে মনে রাখতে পারেন ১ কোটি ৪৭ লক্ষ ১০ হাজার ২০৮)
Ø  আজ= আব্দুর রউফ (১)
Ø  হা= হামিদুর রহমান(৪),
Ø  জা= জাহাঙ্গীর(৭),
Ø  রো= রুহুল আমিন(১০),
Ø  মো= মোস্তফা কামাল(২),
Ø  ম= মতিউর রহমান(০-কোন সেক্টরে যুদ্ধ করেননি),
Ø  নূ= নূর মোহাম্মদ(৮)
১নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (রফিক ও জিয়াউর রহমান ফেনীর ১নং টার্মিনাল থেকে বাচে করে খাগরাছড়ি যাবে।)
ব্যাখ্যাঃ রফিক ও জিয়াউর রহমান(সেক্টর কমান্ডার)
ফেনী, বাচ -(বা’তে–বান্দরবন, চ’তে-চট্রগ্রাম); খাগরাছড়ি -(খাগরা’তে–খাগড়াছড়ি, রা’তে–রাংগামাটি)
২নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (খালেদ ফরিদপুরের আখিকে ভৈরব নদীতে ২টি কুমির দেখিয়ে ঢাক পিটিয়ে নোয়াখালি পর্যন্ত বাজালো)
ব্যাখ্যাঃ খালেদ মোশাররফ(সেক্টর কমান্ডার), ফরিদপুরের -ফরিদপুর
আখিকে -আখাউড়া
ভৈরব -ভৈরব
২টি -২নং সেক্টর
কুমির -কুমিল্লা
ঢাক -ঢাকা
নোয়াখালি -নোয়াখালি
৩নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (“সফিউল্লাহ” ও “নুরুজ্জামান” ৩নং ষ্টেডিয়ামে হকি খেলছে।)
ব্যাখ্যাঃ সফিউল্লাহ ও নুরুজ্জামান(সেক্টর কমান্ডার) হ -হবিগঞ্জ, কি -কিশোরগঞ্জ
৪নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (দত্তের ৪নং ছেলেকে সিলেটে শায়েস্তা করলো।) অথবা, (দত্তের ৪নং ছেলে সিলেট ও শায়েস্তা গঞ্জের কমান্ডার)
ব্যাখ্যাঃ দও -সিআরদত্ত(সেক্টর কমান্ডার), সিলেট, শায়েস্তাগঞ্জ ৪নং-এ
৫নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (শওকত আলী ৫টার সময় আসবে।)
ব্যাখ্যাঃ শওকত আলী(সেক্টর কমান্ডার), স -সুনামগঞ্জ, ময় -ময়মেনসিংহ
৬নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (বাসার ৬টায় রংপুর গিয়ে ঠাকুরের দেখা পেলো।)
ব্যাখ্যাঃ বাসার(সেক্টর কমান্ডার); রংপুর, ঠাকুরগাঁও
৭নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (নুরুজ্জামানের ৭ভাই দিব পারা বাস করে) ; অথবা, (নুরুজ্জামানের ৭ নং ভাই রাদিব পাবনায় বাস করে)
ব্যাখ্যাঃ নুরুজ্জামান (সেক্টর কমান্ডার), দি -দিনাজপুর, ব -বগুড়া, পা -পাবনা, রা -রাজশাহী
৮নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (ওসমান ৮নং মুজিব নগরের কমান্ডার)
ব্যাখ্যাঃ ওসমান(সেক্টর কমান্ডার)
মুজিব নগর
৯নং সেক্টরঃ
মনেরাখুনঃ (জলিল (৯)নয় মঞ্জুর সাতারে খুব পটু)
ব্যাখ্যাঃ আবদুল জলিল ও এমএ মঞ্জুর (সেক্টর কমান্ডার)
সাতারে -সাতক্ষিরা
খু -খুলনা
ব -বরিশাল
পটু -পটুয়াখালী
১০ ও ১১নং সেক্টরঃ মনেরাখুনঃ (কমান্ডার বিহীন ১০ নং নৌকা মার্কায় ১১নং টাংগাইলের তাহেরের জয়লাভ)
ব্যাখ্যাঃ ১০নং সেক্টরঃ কমান্ডার বিহীন ১০ নং নৌকা মার্কা অর্থাৎ (১০নং ছিলো নৌ সেক্টর এবং এই সেক্টরে কোনো সেক্টর কমান্ডার ছিলো না )
১১নং সেক্টরঃ ছিলো টাংগাইল জেলা। এবং সেক্টর কমান্ডার ছিলেন মেজর তাহের।
 

Direct Download